প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বর্তমানে দেশের ঈদের বাজারের আকার দুই লাখ কোটি টাকার বেশি, বললেন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সহ-সভাপতি

মঈন মোশাররফ : প্রতি বছরই ঈদের কেনাকাটার হার ও পরিমান বাড়ছে। দেশের শপিংমলগুলোতে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে কেনাকাটার ধুম। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বরাবরের মতো এবারও ক্রেতাদের পছন্দ বিদেশি পোশাক, বিশেষ করে ভারতীয় পোশাক।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি এবং এফবিসিসিআই’র সাবেক সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন আহমেদ রোববার ডয়চে ভেলেক বলেন, এবার ঈদের কেনাকাটা গত বছরের তুলনায় কমপক্ষে ১০ ভাগ বেড়েছে। এফবিসিসিআই-এর ২০১৭ সালের এক সমীক্ষা থেকে জানা গেছে, বাংলাদেশের ঈদের বাজারের আকার ১ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা। এই বাজার এখন দুই লক্ষ কোটি টাকার বেশি।

তিনি আরো বলেন, মধ্যবিত্ত এবং উচ্চবিত্ত নারীদের ভারতীয় শাড়ি এবং অন্যান্য পোশাকের প্রতি আগ্রহ বেশি। আমি মনে করি ঈদের বাজারে নারীদের যে পোশাক বিক্রি হয় তার অর্ধেকই ভারতীয়। সেই হিসেবে ঈদে ১০-১২ হাজার কোটি টাকার ভারতীয় পোশাক কেনেন বাংলাদেশিরা।

অনলাইন শপিং প্রসঙ্গে হেলাল উদ্দিন বলেন, রাস্তায় ব্যাপক যানজট এবং ভোগান্তির কারণে অনলাইন শপিংয়ের প্রতি ক্রেতাদের আগ্রহ বাড়ছে। ভোগান্তি এড়াতে তারা এখন ঘরে বসেই ঈদের শাড়ি বা জামা কাপড় পেতে চান। সম্পাদনায় : কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত