প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিভিন্ন দেশে তামাকে নিরুৎসাহিত করা হলেও আমরা জনস্বাস্থ্যকে হুমকিতে ফেলেছি, বলছেন অর্থনীতিবিদরা

কেএম নাহিদ : বিশ্বের যেসব দেশে সিগারেটের দাম অত্যন্ত কম তার মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। এমনই তথ্য দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। আর অর্থনীতিবিদরা বলছেন, সরকার দিন দিন তামাককে সস্তা থেকে আরও সস্তা করছে। যা খুবই উদ্বেগজনক বলে মনে করেন তারা। গবেষকরা বলছেন, ধূমপায়ীদের নিরুৎসাহিত করে তামাকপণ্যের দাম বাড়ানোর পাশাপাশি সিগারেটের স্তর চারটি থেকে কমিয়ে একটিতে আনা প্রয়োজন। সময় টিভি অনলাইন

গ্লোবাল অ্যাডাল্ট টোব্যাকো সার্ভে-গ্যাটসের তথ্যমতে বর্তমানে বাংলাদেশে তামাক ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৩ কোটি ৭৮ লাখ। যার মধ্যে জর্দা ও গুলসহ ধোঁয়াবিহীন তামাক ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় সোয়া দুই কোটি। যাদের মধ্যে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যাই বেশি।

আন্তর্জাতিক এক গবেষণায় দেখা যায়, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে তামাকখাত থেকে রাজস্ব আয়ের চেয়ে চিকিৎসা ব্যয় ও অর্থনৈতিক ক্ষতি হয়েছে প্রায় আট হাজার কোটি টাকা। অথচ সরকারিভাবে তামাক ব্যবহারকারীদের দিন দিন উৎসাহিত করা হচ্ছে বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের। বেসরকারি এনজিও প্রজ্ঞার তথ্য অনুযায়ী, ২০১৫-১৬ সালে একজন প্রিমিয়াম স্তরের ধূমপায়ীর ১০০০ শলাকা সিগারেট কিনতে যেখানে মাথাপিছু আয়ের ৯.৩২ শতাংশ ব্যয় হতো, সেখানে ২০১৭-১৮ সালে কমে তা দাঁড়িয়েছে ৭.৩৪ শতাংশে। বিশ্লেষকরা মনে করেন, মাথাপিছু আয়ের আনুপাতিক হারে সিগারেটের দাম বাড়ানো উচিত।
বিআইআইএসএস এর গবেষণা পরিচালক ড. মাহফুজ কবির বলেন, সুনির্দিষ্ট শুল্কের পাশাপাশি মূল্যভিত্তিক শুল্কের সংমিশ্রণ ঘটলে সিগারেট কোম্পানিগুলোর বাধ্য হয়েই দাম বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, মূল্যস্তরকে এমন একটি কাঠামোতে নিয়ে আসতে হবে যাতে এর ভোক্তারা নিজে থেকেই তামাক ছাড়তে বাধ্য হয়। বিভিন্ন দেশে যখন তামাক নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে তখন সরকার বিশ্বের চতুর্থ তামাক কোম্পানি জাপান টোব্যাকোকে বাংলাদেশে ব্যবসার সুযোগ দিয়ে জনস্বাস্থ্যকে আরো একধাপ হুমকির মুখে ফেলেছে বলেও মনে করেন তারা।

অর্থনীতিবিদ ড. কাজী খলীকুজ্জামান বলেন, শুল্ক এমনভাবে বাড়াতে হয় যাতে সিগারেটের দাম আনুপাতিক হারে বাড়ে। এছাড়া তামাক ব্যবহারকারীদের নিরুৎসাহিত করতে সিগারেটের মূল্যস্তর কমিয়ে আনার পাশাপাশি ধোঁয়াবিহীন তামাকের সহজলভ্যতা বন্ধে পরামর্শ দিয়েছে। আমাদের দাবি মূল্যস্তর এক স্তরে নামিয়ে আনা। সম্পাদনায়: কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত