প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বেকারদের ডিজিটাল পদ্ধতিতে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩

মিরসরাই প্রতিনিধি : বাংলাদেশকে জাপানের মতো উন্নত করে সাজাতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশে ব্যাপকহারে কর্মসংস্থান এবং দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির লক্ষে সমগ্র বাংলাদেশে প্রায় ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হচ্ছে। যার মধ্যে সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাই, সীতাকুণ্ড এবং ফেনী জেলার সোনাগাজীতে অবস্থিত “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর” অন্যতম। এ অর্থনৈতিক অঞ্চলের আয়তন প্রায় ৩০হাজার একর। যার বেশিরভাগ অংশ জুড়ে রয়েছে মিরসরাই উপজেলা। অর্থনৈতিক অঞ্চলের প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক উদ্যেক্তাদের মাধ্যমে দ্রুত শিল্পায়ন নিশ্চিত করা এবং দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নের লক্ষে ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা।

গত ৩ এপ্রিল ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরের” শুভ উদ্ধোধনকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জমি প্রদান করে যারা শিল্প নগর স্থাপনে সহযোগিতা করেছেন, তাদের পরিবারের বেকার যুবকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দ্রুত কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন।

এর প্রেক্ষিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর এলাকা পরিদর্শন কালে প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি বিষয়ক মূখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির জন্য উক্ত অঞ্চলের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা প্রদান করেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মঈন উদ্দিন (অবঃ) শতভাগ বিদ্যুতায়নের পাশাপশি নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ, দ্রুততম সময়ের মধ্যে সংযোগ প্রদান, ও চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ (যেখানে শিল্প নগর অবস্থিত) কে অর্থনৈতিক অঞ্চলের বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানে কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষ জনবল তৈরির লক্ষে ডিজিটাল পদ্ধতিতে পবিস ৩ এর আওতাধীন এলাকায় ইলেকট্রিশিয়ান ট্রেনিং আয়োজন করার নির্দেশ দেন।
গতকাল বৃহষ্পতিবার মিরসরাই পবিস এর ডিজিএম মো. আবু জাফর সাংবাদিকদের জানান, চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ জেনারেল ম্যানেজার শাহ জুলফিকার হায়দার ( পিইঞ্জ) মিরসরাই বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ডিজিটাল পদ্ধতিতে প্রজেক্টরের সাহায্যে একসাথে তিনটি উপজেলায় “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষে বিদ্যুৎবিদ প্রশিক্ষণ “বেসিক কনজুমারওয়্যারিং” শীর্ষক কর্মশালা উদ্বোধন করেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, ডিজিএম মো. আবু জাফর , এজিএম মো. শরিফুল ইসলাম, প্রশিক্ষক ইন্সপেক্টর মো. আবদুস সাত্তার প্রমুখ। প্রতি ব্যাচে ৫ শতাধীক আবেদনকারী থেকে ১২০ জন করে অংশ নিবে কর্মশালায়। সম্পাদনা : ওমর ফারুক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ