প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে বাবার সংবাদ সম্মেলন

আসিফ হাসান কাজল: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার টেসল বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির আবাসিক ছাত্র আবু বিন রশিদ হত্যার রহস্য উন্মোচন ও প্রকৃত খুনিদের চিহ্নিত করে শাস্তির দাবি জানিয়েছে তার পরিবার।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আকরাম হোসেন খাঁ হলে নিহত রশিদের বাবা মো. নজরুল ইসলাম ছেলে হত্যার বিচার দাবিতে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘গত ২৫ মে দুপুর ৩.২৮ মিনিটে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ফোন করে জানায়, আমার ছেলে গুরুতর অসুস্থ। ওই সময় তারা আমাকে দ্রুত বিদ্যালয়ে আসার অনুরোধ জানান। এর কিছু পরেই তারা বলেন, দ্রুত হাসপাতালে চলে আসুন। আমি সপরিবারে হাসপাতালে পৌছে দেখি আমার সন্তান মৃত!’

‘ছেলে আবু বিন রশিদ আমাদের আব্বা-আম্মা ডাকতো। অথচ তার সুইসাইড নোটে বাবা-মা লেখা ছিল, যা আমার কাছে অসঙ্গতিপূর্ণ মনে হয়েছে।’

তিনি প্রশ্ন করেন, ‘কেন তার ডায়রির পৃষ্ঠা ছেড়া ছিল? বিদ্যালয় ছাত্রাবাসের দুই ঘণ্টার সিসিটিভি ফুটেজই বা গেল কই?’
পরিবারের পক্ষে নিহতের বড় বোন নাহিদা পারভীন নুপুর বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অসঙ্গতি তুলে ধরে বলেন, ‘আমাদের ও প্রশাসনকে না জানিয়ে তারা মরদেহে হস্তক্ষেপ করেছে। আমার ভাইয়ের হাতের লেখার সাথে সুইসাইড নোটের লেখার কোনো মিল নেই।’

নিহতের বাবা অভিযোগ করে বলেন, ‘ঘটনার আলোকে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ২৮ মে মানববন্ধন করতে চাইলে দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম আমাকে ও আমার পরিবারকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত ও মানসিকভাবে প্রচণ্ড চাপ দেন। ওই দিন রাতেই ওসি নজরুল ইসলাম বদলি হয়ে যান।’

এই ঘটনায় কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার তানভীর আরাফাত বলেন, ‘ওসির বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আমি পাইনি। হ্যান্ড রাইটিং যাচাই-বাছাইয়ে আদালতে আবেদন জানানো হয়েছে।’

মৃত্যুর কারণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর তা বোঝা যাবে। তবে এটিকে আত্মহত্যা বলেই আমাদের মনে হয়েছে।’

সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত