প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএনপিতে কোণঠাসা জিয়ার সহচরেরা, আদর্শ হার মেনেছে বলে ক্ষোভ তাদের

হ্যাপি আক্তার : বিএনপিতে কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন জিয়াউর রহমানের সহচরেরা। যোগ্য ও প্রবীণ নেতাদের অবমূল্যায়ন এবং সুবিধাবাদীদের দৌরাত্ম্যের কাছে জিয়ার আদর্শ হার মেনেছে বলে ক্ষোভ তাদের। জিয়াউর রহমানের ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে দলের বর্তমান অবস্থা নিয়ে হতাশ প্রবীণ নেতারা। ডিবিসি নিউজ

১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর তৎকালীন সামরিক শাসক জিয়াউর রহমান বিভিন্ন রাজনৈতিক মত পথের অনুসারীদের এক প্লাটফর্মে এনে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। তখন থেকে যারা জিয়ার সহচর ছিলেন এবং ১৯৮১ সালে জিয়াউর রহমান নিহত হওয়ার পর যারা বিএনপিকে এতদূর এনেছেন, চার দশকের পথচলায় হতাশাই প্রাপ্তি তাদের।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মোহাম্মদ শাহজাহান ওমর বীর উত্তম বলেন, যারা রাজনীতিতে সক্রিয় এবং দলের পক্ষে কথা বলে তারাই যেন আজ দলের শীর্ষ নেতাদের কাছে নিন্দনীয়। তারা মনে করে দলের এসব প্রবীণ নেতারা তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী । এরা দলকে পুনর্গঠন করবে না, যারা দলের জন্য নিবেদিত বা সিনিয়র রাজনীতিবিদ তাদের কথাও শুনবে না।

এসব নেতাদের নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, এরা কি জন্য যে বিএনপিতে আছে তা বুঝতে পারছি না।
বিএনপির আরেক ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের রাজনীতির ভিত্তিতে এগিয়ে গিয়ে আমাদের শক্তি সঞ্চয় করতে হবে।

দলের প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা, কর্নেল (অব) অলি আহমেদের মতো নেতারা বিএনপি ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। যারা এখনো জিয়ার আদর্শকে ধারণ করে দলে আছেন তাদেরও রাখা হয়েছে নীরব দর্শক করে। জিয়ার আদর্শ থেকে সরে যাওয়া এখনকার বিএনপিতে সুবিধাবাদী ও তোষামোদকারীদের স্বর্ণযুগ চলছে বলেও জানান বিএনপি প্রতিষ্ঠাতার সহচরেরা।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ বলেন, জিয়াউর রহমানকে সবাই এতো ভালোবাসে এর মূল কারণ হলো সততা ও দেশপ্রেম। এখন এ ক্ষেত্রে আমাদের অনেক ঘাটতি রয়েছে।
বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, রাজনীতির কারণে রাজনীতি করি তোষামোদ করার কোনো সুযোগ নেই।

বিএনপির মতো বড় দলে ক্ষোভ হতাশা থাকাটা অস্বাভাবিক নয় বলে মনে করেন স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, নেতাকর্মীদের অনেকেই অসন্তুষ্ট থাকবে, অনেকের মনে কষ্ট থাকবে। তবে সেটাকে সম্মান করে মাথায় রেখে আগামী দিনের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সম্পাদনা : এইচ এম জামাল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত