প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিসিএস এর ফল প্রকাশে জট

মো. তৌহিদ এলাহী : ৩৮ তম বিসিএস এ আবেদনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয় ২০১৭ সালের জুনে। ওই বছর ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হয় প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। গত বছরের আগস্টে লিখিত পরীক্ষাও অনুষ্ঠিত হয়। তবে ৯ মাস পেরিয়ে গেলেও প্রকাশ হয়নি ফল।

পিএসসি বলছে, তারা প্রতিবছর একটি করে বিসিএস এর সার্কুলার ও ফল প্রকাশ করে থাকে কিন্তু চাকরি প্রার্থিদের অভিযোগ প্রিলিমিনারি থেকে শুরু করে গেজেট হওয়া পর্যন্ত দীর্ঘসূত্রতায় পড়তে হয়। তাই এই সময় জটিলতা কমানোর দাবি তাদের। ইনডেপেডেন্ট টিভি

এক পরীক্ষার্থী বলেন, একজন ছাত্র একটা দুইটা বিসিএস দিতে দিতে তার জব এইজ প্রায় শেষ হয়ে যায়। ১২ বা ১৪ মাসের মধ্যে কমিয়ে আনলে ভালো হয়।

পিএসসি জানিয়েছে, জুনেই ৩৮তম বিসিএস এর লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ হবে। আর ৪১তম বিসিএস এর পদ খালির চাহিদাও এসেছে। তাছাড়া ৩৬ ও ৩৭তম বিসিএস এ ননক্যাডার পদে নিয়োগ প্রক্রিয়াও চলছে। আর ৪০তম বিসিএস এর প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হবে জুলাইয়ে।

এ বিষয়ে সরকারী কর্ম কমিশন এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক মুহাম্মদ সাদিক বলেন, পরীক্ষক যারা খাতা দেখেন তারা আমাদের দেয়া নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই খাতা দেখেন। এটি কখনো কখনো কোন কোন ক্ষেত্রে বিলম্বিত হয়। তবে সব মিলিয়ে সময় কমিয়ে আনার চেষ্টা আমরা করছি। শিগগিরই সময় কমিয়ে আনা হবে।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আআমস আরেফিন সিদ্দিকী বলেন, পিএসসির এর যে জনবল বা সক্ষমতা আছে তা কম ফলে এ বিলম্বন হচ্ছে। পিএসসির জনবল বাড়ানো প্রয়োজন । কারণ প্রজাতন্ত্রে প্রতিবছরই আমাদের উচ্চশিক্ষিত বেকারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

তবে পিএসসি বলছে পুরো প্রক্রিয়াটা স্বচ্ছভাবে শেষ করতে এতটা সময় ব্যায় হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত