প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান বর্জন করলেন মমতা

ডেস্ক রিপোর্ট : দ্বিতীয় মেয়াদের ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রথমে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী পশ্চিম বঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু আজ বুধবার সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলেন তিনি।

ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, বুধবার ভারতের স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ১৮ মিনিটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই টুইট করে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।

টুইটে মমতা অভিযোগ করে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের মতো একটি অনুষ্ঠানকে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে চাইছে একটি দল।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে মোদী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, গত ছয় বছরে পশ্চিম বঙ্গে খুন হওয়া বিজেপি কর্মীদের পরিবারের সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠানে ‘বিশেষ আমন্ত্রিত’ হিসেবে রাখা হবে। বুধবার এ সিদ্ধান্তের কথা জানায় বিজেপি।

এরপরই আগের সিদ্ধান্ত থেকে সরে প্রধানমন্ত্রীর শপথ অনুষ্ঠানে না যাওয়ার নতুন সিদ্ধান্তের কথা জানান মমতা।

এক টুইটে তিনি বলেন, ‘অভিনন্দন, নতুন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জি। আমার পরিকল্পনা ছিল “সাংবিধানিক আমন্ত্রণ” গ্রহণ করা এবং শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা। যাই হোক, গত এক ঘণ্টায়, আমি গণমাধ্যমের বিভিন্ন প্রতিবেদনে দেখছিলাম যে বিজেপি দাবি করেছে বাংলায় রাজনৈতিক সহিংসতায় ৫৪ জন নিহত হয়েছেন। এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। বাংলায় কোনো রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেনি।’

ওই সব হত্যাকাণ্ড ব্যক্তিগত শত্রুতা, পারিবারিক দ্বন্দ্ব কিংবা অন্য কোনো বিরোধের কারণে হয়ে থাকতে পারে বলে দাবি করে মমতা বলেছেন, ‘এর কোনোটির সঙ্গেই রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই।’

এরপর লিখেছেন, ‘তাই, আমি দুঃখিত, নরেন্দ্র মোদী জি, অনুষ্ঠানে না থাকতে এটি আমাকে বাধ্য করল।’

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের প্রচারণাকালে মোদীর সঙ্গে মমতার তীব্র কথার লড়াই হয়েছিল। এ লড়াইয়ে কেউ কাউকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেননি।

নির্বাচনের পর দিল্লিতে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের নির্বাচিত লোকসভা সদস্যদের প্রথম বৈঠকে মোদী জানিয়েছিলেন, প্রচারে কে কী বলেছিলেন, সেগুলো মনে না রেখে সবাইকে নিয়ে উন্নয়নের পথে হাঁটতে চান তিনি।

মোদীর ওই আহ্বানের প্রতি সৌজন্য দেখিয়ে ও রাষ্ট্রীয় আনুষ্ঠানিকতায় সাড়া দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মমতা। ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বুধবার রাজধানী দিল্লিও রওনা হওয়ার কথা ছিল তার।

কিন্তু পশ্চিম বঙ্গে ‘খুন হওয়া’ ৫৪ জন বিজেপি কর্মীর পরিবারকে শপথ অনুষ্ঠানে রাখার বিজেপির পরিকল্পনার কারণেই মমতার সিদ্ধান্ত বদল বলে বলছে ভারতীয় গণমাধ্যম। নিজের টুইটে তিনি তা বুঝিয়ে দিয়েছেন বলেও মন্তব্য আনন্দবাজার পত্রিকার।

পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েত ভোটের আগে থেকে শুরু করে লোকসভা নির্বাচন শেষ হওয়া পর্যন্ত বিজেপির ৫৪ জন কর্মী ও সমর্থক খুন হয়েছেন বলে দাবি ভারতের ক্ষমতাসীন দলটির। এদের পরিবারের ৭০ জন সদস্যকে নরেন্দ্র মোদীর বৃহস্পতিবারের শপথ অনুষ্ঠানে নিয়ে যাচ্ছে লোকসভা নির্বাচনে বিপুল জয় পেয়ে নতুন সরকার গঠন করতে যাওয়া দলটি।
সূত্র : দৈনিক আমাদের সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ