প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নিউমার্কেট কাঁচাবাজারে র‌্যাবের অভিযানে ৬মণ মাংস জব্দ

সুজন কৈরী : রাজধানীর নিউমার্কেট কাঁচাবাজারে অভিযান চালিয়ে রঙ মেশানো গরুর মাংস বিক্রি এবং ভারতীয় মহিষের মাংস গরুর মাংস বলে বিক্রির অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে র্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া জব্দ করা হয় ৬ মণ মাংস। এছাড়া অভিযানকালে দুই প্রতিষ্ঠানকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে র্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়।

সারওয়ার আলম বলেন, অভিযানকালে মাংসের দোকানগুলোতে দেখা যায়, ফ্রিজে মাংস মজুত ছিল। দীর্ঘদিন আগের মাংস হওয়ায় ফ্যাকাসে রঙ ধারণ করেছিল। বিক্রিতে ঝামেলা মনে করে সেসব বের করে রঙ দিয়ে টাটকা দেখানোর চেষ্টা করছিল অসাধু ব্যবসায়ীরা। পানির জারে রাখা ছিল রঙ মিশ্রিত পানি। মাংস বের করে সেসব রঙ মিশিয়ে রক্ত বর্ণে পরিণত করা হচ্ছিল। এছাড়া ভারত থেকে আমদানি করা মহিষের মাংস গরুর মাংস বলেও বিক্রি হচ্ছিল। মাংস ছোট ছোট পিস করে গরুর মাংস বলে বিক্রি করা হচ্ছিল। এজন্য দুটি দোকানকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করাসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে ৬ মণ মাংস।

তিনি আরো বলেন, সোমবার বিকেলে রাজধানীর সীমান্ত স্কয়ারের ৭ তলার ফুডকোর্টে পৃথক চালানো হয়। এ সময় সেখানে থাকা ৩০টি দোকানের মধ্যে ২৪টি দোকানের মালিক ও কর্মচারীরা দোকান বন্ধ করে পালিয়ে যান। পরে দোকানগুলো বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়। এছাড়া অভিযানকালে স্পাইসি চিকেনে শিল্প কারখানায় ব্যবহৃত রঙ ব্যবহার করতে দেখা যায়। এছাড়া প্রতিটি দোকানের রান্নাঘরে তেলাপোকা ও খাবার তৈরির জায়গা অস্বাস্থ্যকর ছিল। এসব কারণে বিল্লা স্পাইসি ফুডকে ৪০ হাজার, মায়সা ইতালিয়ান ফুডকে ৫০ হাজার, ফোরমোসা কিউ কিউকে ২৫ হাজার, ইট ওয়েকে ৫০ হাজার এবং ইট প্লেটকে ৫০ হাজার টাকা করে মোট ২ লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, অভিযান শেষে সাটার বন্ধ করে পালিয়ে যাওয়া দোকানগুলোতে পরবর্তী অভিযান চালানোর আগে খোলা যাবে না ঘোষণা দেয়া হলে কফি লাইম নামে এক দোকানের মালিক সামনে আসেন। পরে সেখানে গিয়ে দোকানটি পরিচ্ছন্ন পাওয়া যায়। সারওয়ার আলম বলেন, দোকানগুলো বন্ধ রাখতে সীমান্ত স্কয়ার কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। পরবর্তী অভিযানের আগে দোকানগুলো খুলতে দেবে না বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

এদিকে সোমবার ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে ডিবি ও ক্রাইম বিভাগের সমন্বয়ে রাজধানীর খিলগাঁও এলাকায় খাদ্যে ভেজাল বিরোধী ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালানো হয়। অভিযানকালে পঁচা-বাসি খাবার রাখা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরীর করায় ট্রেডিশন বিডি রেস্টুরেন্টকে এক লাখ, বৈশাখী রেস্টুরেন্টকে ৩০ হাজার, আল রহমানিয়া বিরিয়ানী এন্ড কাবাব ঘরকে ৩০ হাজার এবং মুক্তা বিরিয়ানী ঘরকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত