প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোডসের দৃষ্টিতে মাশরাফি ও সাকিব ভিন্ন ধাঁচের দুই অধিনায়ক

স্পোর্টস ডেস্ক : অনেক আগেই টেস্ট খেলা ছেড়ে দিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচের অধিনায়কের দায়িত্বে পড়ে তার কাঁধে। দুই ফরমেটের অধিনায়কত্ব করে দলকে নিয়ে গেছেন অনন্য এক চূড়ায়। ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কার টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব ছাড়ার সাথে সাথে বিধায় জানিয়েছেন এই ফরমেটের খেলাকেও। তারপর থেকে একদিনের ক্রিকেটটাকে দেখভাল করছেন সতর্ক ‘বড়ভাই’র মত। অন্য দুই ফরম্যাটের অধিনায়কের আর্মব্যান্ড থাকে সাকিব আল হাসানের হাতে যার নাম মাশরাফির নামের সাথেই সমান জোরে উচ্চারিত হয় দেশের ক্রিকেটে অবদান বিবেচনায়।

টাইগারদের দুই অধিনায়ককে প্রধান কোচ স্টিভ রোডস কীভাবে দেখেন? অতীতে একাধিকবার তার কণ্ঠে শোনা গেছে অধিনায়ক মাশরাফি বা অধিনায়ক সাকিবের মূল্যায়ন। তবে বিশ্বকাপকে সামনে রেখে আনুষ্ঠানিক আলাপচারিতায় এবারই সম্ভবত দুই অধিনায়কের মূল্যায়ন রোডস করলেন সবচেয়ে খোলামেলাভাবে।

মাশরাফি সম্পর্কে রোডস বলেন, ‘মাশরাফি তার নিজ ভঙ্গিতে, একজন যোদ্ধার মত দলকে নেতৃত্ব দেয়। সে এমন একজন ব্যক্তিত্ব যাকে মানুষ শ্রদ্ধা করে। সে কাউকে এমন কিছু করতে বলে না যা সে নিজে করতে পারবে না। এটি একজন অধিনায়কের মহৎ গুণ। আমি তাকে কিছু ক্ষেত্রে সহায়তা করার চেষ্টা করি। চেষ্টা করে যাই, এবং আমাদের সম্পর্ক নিয়ে কাজ করি। এবং এটা বেশ ভালো কাজ করছে বলেই মনে হয়।’

অধিনায়ক হিসেবে সাকিবের সম্পর্কে কোচের ভাষ্য, ‘অন্য দুই ফরম্যাটে অধিনায়ক সাকিব। তারা ভিন্ন ধাঁচের দুই অধিনায়ক। প্রতিপক্ষের বিপক্ষে যথেষ্ট ধারণা রেখে কৌশলী একজন অধিনায়ক সাকিব, এবং সে জানে ঠিক সময়ে কোন কাজটি করতে হবে।’

দুই অধিনায়কের সাথে কাজ করতে গিয়ে তার কি কোনো অসুবিধা হয় না? মুগ্ধ করা উত্তরে রোডস জানালেন, ‘দুজন ভিন্ন ধরনের অধিনায়ক বলে তাদের সাথে কাজ করতে গিয়ে আসলে আমাকে ভিন্নভাবে কাজ করতে হয়। পরিস্থিতির মধ্যে সেরাটাই করতে হয়; আমাদের সম্পর্কের উপর ভিত্তি করে, দেশের ক্রিকেটের জন্য। আমার কাজ হুকুম করা নয়, আমার কাজ নিশ্চিত করা— যে গাড়িটি চলছে তা ঠিক পথেই আছে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ