প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

‘পাকিস্তানের দর্শকরা বিশ্বকাপ চায় না, ভারতের বিরুদ্ধে জয় চায়’

এল আর বাদল : ১৯৭৪ সাল থেকে ভারত-পাকিস্তান একে অপরের বিরুদ্ধে ওয়ানডে ক্রিকেট ম্যাচ খেলে আসছে। দুই দল এ পর্যন্ত ১২৪ বার মুখোমুখি হয়েছে। এর মধ্যে পাকিস্তান জিতেছে ৭১টি ম্যাচ এবং ভারত জিতেছে ৪৯টি ম্যাচ। এর মধ্যে ৪টি ওডিআই ম্যাচ ড্র হয়।

অন্যদিকে বিশ্বকাপে উভয় দল ছ’বার মুখোমুখি হয়েছে। প্রতিবারই মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে ইমরান খানের দেশকে।

তবে এবার বদলে যাবে ইতিহাসের চাকা। ভারতকে হারাবে পাকিস্তান। বিশ্বব্যাপী পাকিস্তান দলের ভক্তরা উল্লাসে মাতবে। পাক ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হক এমনটাই মনে করেন।

ক্রিকেট পাকিস্তানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এই কর্তা বলেন, ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের গুরুত্ব মানুষের কাছে অন্য রকমের। পাকিস্তানের দর্শকরা বলতে শুরু করে দিয়েছেন, আমরা বিশ্বকাপ চাই না, বিশ্বকাপ না জিতলেও চলবে। ভারতকে হারাতে পারলেই আমরা খুশি। আমি আশাবাদী এবার ভারতকে আমরা হারাতে পারব। বিশ্বকাপে ভারতের কাছে হারের ইতিহাস এবারই বদলাতে পারব বলে আশা রাখি।

ইনজামাম বেশ ভালোই জানেন ভারত-পাক ম্যাচের গুরুত্ব। নিজেও এক সময়ে খেলেছেন এই ম্যাচ। এবার তার ভ‚মিকা বদলে গেছে। তিনি এখন পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচক। জাতীয় দল গঠন করা কতটা কঠিন, তা এখন তিনি বেশ বুঝতে পারছেন।

ইনজামাম আরও বলেন, মানুষ মনে করে ১৪-১৫ জন ক্রিকেটারের নাম লিখে ফেললেই একটা স্কোয়াড তৈরি করে ফেলা যায়। কিন্তু ব্যাপারটা অতটা সহজ নয়। প্রচুর চাপ থাকে।

প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে হারতে হয়েছে পাকিস্তানকে। এর আগে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজেও বিপর্যস্ত হয়েছে ১৯৯২ সালের চ্যাম্পিয়নরা।

আফগানিস্তানের কাছে হার প্রসঙ্গে ইনজামাম বলছেন, বিশ্বকাপে কোনও দলকেই হাল্কা ভাবে নেয়াটা ঠিক হবে না। আফগানিস্তানের মতো দল যে কোনো বড় দলকে হারানোর ক্ষমতা ধরে।

১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে ইনজামামের ব্যাটের জোরেই ফাইনালে পৌঁছেছিল পাকিস্তান। ফাইনালেও শেষের দিকে ইনজামাম দ্রæত লড়ে রান তুলেছিলেন। সেবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পাকিস্তান। সূত্র, ক্রিকেট পাকিস্তান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত