প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

জয়ের পরপরই দুঃসংবাদ, আমেঠিতে খুন স্মৃতি ইরানির ঘনিষ্ঠ সহযোগী

লিউনা হক: কার্যত ইতিহাস সৃষ্টি করে আমেঠিতে জয়লাভ করেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। হারিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে। কিন্তু সেই ঐতিহাসিক জয়ের পরপরই স্মৃতির জন্যে দুঃসংবাদ বয়ে এল স্মৃতির জন্যে। আমেঠিতে তার জয়ের অন্যতম মূলহোতা বিজেপি নেতা সুরেন্দ্র সিং খুন হলেন। এনডিটিভি, আনন্দবাজার

বারাউলিয়া গ্রামের ঘটনা। এ বারের নির্বাচনে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত স্মৃতি ইরানির সঙ্গে প্রচার কাজ চালিয়েছিলেন এই প্রাক্তন গ্রামপ্রধান। রাহুল গান্ধীকে হারিয়ে আমেঠি থেকে এ বার জিতেছেন স্মৃতি। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, স্মৃতির জয়ের নেপথ্যে অন্যতম কারিগর ছিলেন বছর পঞ্চাশের সুরেন্দ্র।

পুলিশ জানিয়েছে, রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ কয়েক জন দুষ্কৃতী বাইকে চেপে সুরেন্দ্রর বাড়িতে আসে। তাদের প্রত্যেকের কাছেই আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। সুরেন্দ্র তখন ঘরে শুয়েছিলেন। সেই সময়ই দুষ্কৃতীরা ঘরে ঢুকে পয়েন্ট ব্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে পর পর কয়েকটি গুলি করে পালিয়ে যায়। ঘটনার খবর চাউর হতেই গ্রামবাসীরা ছুটে আসেন। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। এই ঘটনা প্রসঙ্গে আমেঠির পুলিশ সুপার বলেন, “এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দু’জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। রাজনৈতিক কারণ নাকি ব্যক্তিগত বিবাদে খুন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

আমেঠিতে প্রচারের সময় স্মৃতি ইরানি ও সুরেন্দ্রর বিরুদ্ধে গ্রামবাসীদের জুতো বিলি করার অভিযোগ তুলেছিলেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। যদিও সেই অভিযোগ খারিজ করে দেয় বিজেপি।

উত্তর প্রদেশের আমেঠিতে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে ৫৫,১২০ ভোটে পরাজিত করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত