প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কঠোর গর্ভপাত নিষেধাজ্ঞায় আলবামার বিরুদ্ধে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর মামলা

লিউনা হক: গর্ভপাত নিষেধাজ্ঞায় আলবামার বিরুদ্ধে আমেরকিান সিভিল লিবার্টিস ইউনিয়ন( এসিএলইউ), প্ল্যানেড প্যারেন্টহুড, গর্ভপাত ও স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলো আদালতে মামলা করে। সংস্থাগুলো বলছে, মনুষ্যনির্মিত জনস্বাস্থ্যের জরুরী বিষয়ে এই আইনটি ‘খুব কঠোর’। বিবিসি, নিউজউইক

ধর্ষণ বা নিকটাত্মীয়ের মধ্যে যৌন সম্পর্ক ছাড়া অন্য কোন কারণে গর্ভবতী হলে তার হাতে কোন বিকল্প সুযোগ নেই বলে আইনটিতে বলা হয়।

গর্ভপাত বিরোধী আন্দোলনকারীরা আইনটির বৈধ চ্যালেঞ্জ করেছেন এবং মার্কিন আদালতে আপিল করে পুনরায় বিষয়টি বিবেচনায় আনার অনুরোধ করবেন।

আলবামার এসিএলইউ’র নির্বাহী পরিচালক রন্ডাল মার্শাল বলেন, নিরাপদ ও বৈধ আলবামায় গর্ভপাত আছে এবং থাকবে। আইনের প্রতি সম্মান দেখিয়ে আমরা আদালতের নির্দেশের অপেক্ষায় আছি। আদালতকে অনুরোধ করব আইনটি যেন কোনকিছুকে প্রভাবিত না করে সেদিকে নজর রাখতে।

নতুন আইনটিতে বলা আছে কোন ডাক্তার যদি গর্ভপাত করায় তাহলে তিনি সর্বোচ্চ ৯৯ বছর কারাভোগ করতে হবে। কিন্তু একজন মহিলা আন্দোরনকারি বলছেন, গর্ভপাতকে কোন অপরাধের আওতায় আনা যায়না।
গর্ভধারণের আট সপ্তাহ পরে গর্ভপাত নিষিদ্ধ করে শুক্রবার মিসৌরিসহ জর্জিয়া, কেনটুকি, মিসিসিপি এবং ওহিও অঙ্গরাজ্যের গভর্নর ‘যদি কোন ব্রুণের হৃদস্পন্দন পাওয়া যায় সে অবস্থায় গর্ভপাত নিষিদ্ধ’ নামে একটি আইন পাশ করেন।
দ্য ন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর উইমেন এই নিষেধাজ্ঞাকে ‘অসাংবিধানিক’ বলে দাবি করেছে। নিজের জরায়ুর ওপর নারীদের অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে বলে মনে করছেন তারা। তাদের মতে, আসন্ন নির্বাচনে গর্ভপাতবিরোধী প্রার্থীদের রাজনৈতিক সমর্থন জানানোর একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়া এটি।

উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্য আলবামার আইনপ্রণেতারা রাজ্যটিতে গর্ভপাত নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব অনুমোদন করেছেন এই মাসের মাঝামাঝি সময়ে। সক্রিয় আন্দোলনকারীরা আশা করছেন, ১৯৭৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাত বৈধ ঘোষণা করে সুপ্রীম কোর্ট যে রায় দিয়েছিলেন, তাকে চ্যালেঞ্জ করতে শক্তিশালী ভূমিকা রাখবে এই আইনটি। চলতি মাসের শুরুর দিকেআলবামার হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে ৭৪-৩ ভোটে পাস হয গর্ভপাতবিরোধী বিলটি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত