প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিজেপি, জামায়াত, শিবসেনাসহ মৌলবাদী গোষ্ঠীর দোসরদের বিষয়ে সজাগ থাকতে হবে

শেখ আদনান ফাহাদ : একজন ননমুসলিম যখন অত্যাচারের শিকার হয়, তখন তাকে আলাদা করে ফেলা হয়। গুনে গুনে হিসাব করা হয়। হিন্দু নারী ধর্ষিত হলে লেখা হয় ‘সংখ্যালঘু ধর্ষিত’,। অথচ এমন শত শত মুসলিম নারীও ধর্ষণের শিকার হচ্ছে; এ ক্ষেত্রে তো লেখা হয় না যে, মুসলিম নারী ধর্ষিত। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে একাত্তর, এমনকি সাম্প্রতিককালের বিএনপি-জামায়াতের পেট্রলবোমা সন্ত্রাসে যারা জীবন দিয়েছেন তাঁদের বেশিরভাগই তো ধর্মের বিবেচনায় মুসলিম। কিন্তু এসব ক্ষেত্রে ধর্মের পরিচয় আনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পরিপন্থী।

আমরা বাঙালি হিসেবেই বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে লড়েছিলাম। তাহলে কেন ‘সংখ্যালঘু’ পরিচয়কে প্রধান করে তুলতে হবে। আইন তো সবার জন্যই। আসল সংখ্যালঘু তো সেই যে অসহায়, দরিদ্র। একজন কোটিপতি হিন্দু ‘সংখ্যালঘু’ আর একজন মুসলিম গরিব কৃষক ‘সংখ্যাগুরু’? হ্যাঁ, সংখ্যার দিক থেকে ঠিক আছে। কিন্তু আমাদের দেশে সংখ্যালঘু বলতে বোঝানো হচ্ছে খুব নির্যাতিত, অসহায় ইত্যাদি। এই শব্দের রাজনীতি থেকে বেড়িয়ে আসতে হবে দ্রুত। না হলে আমাদের অবস্থা ভালো থাকবে না। বাংলাদেশে সাম্প্রাদায়িকতা উস্কে দিচ্ছে একটা শ্রেণি। বিজেপি, জামায়াত, শিবসেনাসহ মৌলবাদী গোষ্ঠীর দোসরদের বিষয়ে আমাদের সজাগ থাকতে হবে।  লেখক : বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষক। ফেসবুক থেকে

 

 

 

 

 

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত