প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

 অমিত শাহর নৈশভোজে শলাপরামর্শ সেরে নিলেন এনডিএর নেতারা

খালিদ আহমেদ : আর দুই দিন পর জানা যাবে ভারতের মসনদে কে বসছে।যদিও বুথ ফেরত জরিপ বলছে বিজিপি সহজ জয় পেতে যাচ্ছে। তার আগে মঙ্গলবার রাতে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ আয়োজিত বিশেষ নৈশভোজে  মিলিত হলেন এনডিএ নেতারা।এটাকে ভোর পরবর্তী কৌশল নির্ধারনের মিলন হিসেবে দেখা হচ্ছে। এরআগে নয়াদিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহর সঙ্গে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা দেখা করেন। এনডিটিভি

নৈশভোজে ছিলেন বিজেপির পঞ্জাব জোটসঙ্গী আকালি নেতা প্রকাশ সিংহ বাদল ও তার পুত্র সুখবীর বাদল, শিবসেনা অধ্যক্ষ উদ্ধব থ্যাকারে, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার, রামবিলাস পাসওয়ান ও তার পুত্র চিরাগ পাসওয়ান, এআইএডিএমকে-র পালানিস্বামী এবং ও পনিরসেলভাম, আপনা দল নেতা অনুপ্রিয়া প্যাটেল ও রামদাস আঠাওয়ালে।

১৪টি বুথ ফেরত জরিপের  মধ্যে বারোটির হিসেবই বলছে এনডিএ পূর্ণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে। সংখ্যাটা ঘোরাফেরা করছে ২৮২ থেকে ৩৬৫-র মধ্যে। সমস্ত বুথ ফেরত জরিপের গড় হিসেব অনুযায়ী, বিজেপির নেতৃত্বে এনডিএ জোট পাবে ৩০২টি আসন এবং কংগ্রেস ও তার জোটসঙ্গীরা পাবে ১২২টি আসন।

সরকার গঠনে জোটের ২৭১টি আসন দরকার। ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ৫৪২টি আসনে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনের ষষ্ঠ ধাপের ভোটদান শেষে বিজিপির শীর্ষ নেতারা জানিয়ে দেন তাদের জোট তিন’শরও বেশী আসন পাবে।

কিন্তু শুক্রবার, ৭ম দফা ভোট গ্রহনের আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যখন প্রথম সাংবাদিক সম্মেলনে আসেন, তখন সেটাকে তার নার্ভাসনেসের লক্ষণ হিসেবেই ধরা হয়। প্রধানমন্ত্রী মোদী গত পাঁচ বছরে একটিও সাংবাদিক সম্মেলন করেননি। কিছু সাক্ষাৎকার অবশ্য দিয়েছেন। কিন্তু সেগুলিকে সমালোচকরা ‘নরম ও সাজানো’ বলে কটাক্ষ করেছেন।

২০১৪ সালে বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে সরকার গঠন করেছিলো। গত তিন দশকে এ ঘটণা আর ঘটেনি। অনেকেই অনুমান করছেন কোন দল এবার একক সংখ্যা গরিষ্ঠতা পবে না। সরকার গঠনে তাদের সঙ্গির দরকার পরবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত