প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

শেয়ারবাজারে একদিন বড় উত্থানের পর আবার বড় দরপতন

রমজান আলী : ব্যাংকের বিনিয়োগসীমা থেকে অতালিকাভুক্ত সিকিউরিটিজ থেকে বাদ দিয়ে সার্কুলার জারির পর গত রোববার বড় উত্থান হয়েছে শেয়ারবাজারে। তারপর আবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার সূচক ও লেনদেন কমে চলছে এ দিনের কার্যক্রম। গতকাল বেলা ১১টা পর্যন্ত ডিএসই’র প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৪০ পয়েন্ট। সিএসইর প্রধান সূচক সিএসসিএক্স কমেছে ৬৩ পয়েন্ট। এছাড়াও একই সময়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১২৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকা এবং সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। ডিএসই ও সিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিন ডিএসইতে লেনদেনের শুরুতে সূচক কমে। লেনদেনের শুরু হয় সকাল ১০টায়, প্রথম ১০ মিনিটেই ডিএসইএক্স সূচক ১০ পয়েন্ট কমে যায়। এরপর থেকে সূচক কমার প্রবণতা বাড়তে থাকে। তবে ১০টা ৩০ মিনিটের পর সূচক কমে ১৬ পয়েন্ট। ১০টা ৪৫ মিনিটে সূচক গত কার্যদিবসের চেয়ে ২৪ পয়েন্ট কমে যায়। বেলা ১১টায় ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৪০ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ৫ হাজার ২৯৫ পয়েন্টে। অন্যদিকে, ডিএসই-৩০ সূচক ১২ পয়েন্ট কমে অবস্থান করেছে এক হাজার ৮৩৭ পয়েন্টে এবং ডিএসই শরিয়াহসূচক ৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করেছে এক হাজার ২০৬ পয়েন্টে। এদিন বেলা ১১টা পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১২৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের।

একই সময়ে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ২০২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫০টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। এদিন বেলা ১১টা পর্যন্ত ডিএসইতে দাম বৃদ্ধি পাওয়া শীর্ষ দশ কোম্পানির তালিকায় আছে- এসকে ট্রিমার, ব্র্যাক ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, ফরচুন সু, আইএফআইসি ব্যাংক, এস্কার নিটিং, সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স, বেক্সিমকো লিমিটেড, ন্যাশনাল ফিড মিল এবং মুন্নু সিরামিকস। অন্যদিকে, একই সময়ে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ সূচক (সিএসইএক্স) ৬৩ পয়েন্ট কমে ৯ হাজার ৮০৭ পয়েন্টে, সিএসই-৩০ সূচক ৯১ পয়েন্ট কমে ১৪ হাজার ১৩০ পয়েন্টে এবং সিএএসপিআই সূচক ১২২ পয়েন্ট কমে ১৬ হাজার ১৮৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। এদিন বেলা ১১টা পর্যন্ত সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩ কোটি ৬ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। গত কার্যদিবসে একই সময়ে লেনদেন হয়েছিল ১৬ কোটি ৬৯ লাখ টাকা।

একই সময়ে দাম বাড়ার ভিত্তিতে সিএসই’র শীর্ষ কোম্পানিগুলো হলো- রিলায়েন্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, এমারেল্ড অয়েল, প্রাইম ব্যাংক, আইসিবি এএমসিএল দ্বিতীয় মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ইয়াকিন পলিমার, এসকে ট্রিমার, মাইডাস ফাইন্যান্স, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স, আমান ফিড এবং ইবিএল ফাস্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত