প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ সমাপ্ত, পশ্চিমবঙ্গে ও বিহারে সংঘর্ষ

লিহান লিমা: ভারতের লোকসভা নির্বাচনের সপ্তম ও শেষদফায় সাতটি রাজ্য এবং একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ৫৯টি আসনে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। রোববারের এই নির্বাচনে ৯১৮ জন প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারণে ভোট দিয়েছেন প্রায় ১০ কোটি ১৭ লাখ ভোটার। ইয়ন, এনডিটিভি, দ্য হিন্দু, হিন্দুস্তান টাইমস, টাইমস অব ইন্ডিয়া

স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় নির্বাচন শেষ হওয়ার পর ভারতের নির্বাচন কমিশন জানায়, কেন্দ্র ও প্রদেশসহ মোট ৫৪২টি পার্লামেন্টারি আসনে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এদিকে নির্বাচনি পোল সমাপ্তের পর কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেছেন, ‘ইলেক্টরাল বন্ড ও ইভিএম কেলেঙ্কারি হয়েছে। নামো টিভি, মোদি আর্মি এবং এখন কেদারনাথ ড্রামা, নির্বাচন কমিশন মোদি ও তার গ্যাংদের কাছে আত্মসমপর্ণ করেছে।’

রোববারের নির্বাচনে সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৬০.২৭ শতাংশ ভোটার ভোট দিয়েছেন। বিহারে (৫১.৬১ শতাংশ), হিমাচল প্রদেশে (৬৫.৩০), মধ্যপ্রদেশে (৬৯.৩৮), পাঞ্জাব (৫৮.৮০), উত্তরপ্রদেশে (৫৩.৭৬), পশ্চিমবঙ্গে (৭৩.০৫), ঝাড়খন্ডে (৭০.০৫), চন্ডিগড়ে (৬৩.৫৭) শতাংশ ভোট পড়েছে।

এর মধ্যে কয়েকটি কেন্দ্রে বিশেষ করে পশ্চিবঙ্গে সংঘর্ষ, উত্তেজনা ও ইভিএম ভাঙচুরের খবর পাওয়া গিয়েছে। উত্তর কলকাতার বিজেপি প্রার্থী রাহুল সিনহা অভিযোগ করেছেন তাকে তৃণমূলের কর্মীরা আক্রমণ করেছে। ইসলামপুরে বিধানসভার উপনির্বাচনে গোলমাল হয়েছে। যাদবপুরের বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরার অভিযোগ, তাঁকে বুথে ঢুকতে বাধা দিয়েছেন তৃণমূল কর্মীরা। আরেক বিজেপি প্রার্থী নিরঞ্জন রায়ের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। এদিকে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে ভোটারদের ভয় দেখানোর অভিযোগ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিহারের পাটনায় দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে, সাংবাদিকদের ক্যামেরা ভাঙচুর করা হয়, নালন্দাতে গ্রামবাসীরা ভোট বয়কট করেন ও ইভিএম ভাঙচুর করা হয়।

এই দফায় হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে বিজেপি থেকে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও রবি শঙ্কর প্রসাদ। কংগ্রেস থেকে আছেন শত্রুঘ্ন সিনহা ও মনিস তেওয়ারি। তৃণমূল থেকে পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। বেনারস থেকে মোদির বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন কংগ্রেসের অজয় রায়। বিহারের পাটনা সাহিব কেন্দ্রে দীর্ঘদিন ধরে রাজত্ব করা বিজেপির হয়ে দাঁড়ানো বলিউডের বিশ্বনাথ শত্রুঘ্ন সিনহা দলবদল করে কংগ্রেসে এসেছেন। তার বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর কেন্দ্রে কংগ্রেসর সুনিল জাফরকে পরাজিত করতে অভিনেতা সানি দেওলকে প্রার্থী করেছে বিজেপি। বরাবরই কংগ্রেসের ফেভারে থাকা পাঞ্জাবের অমৃতসরে কংগ্রেসের গুরুজিৎ সিংয়ের বিপক্ষে আছেন বিজেপির হরদীপ সিং পুরি। ওড়িশা এবং পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে পাখির চোখে তাকিয়ে আছে বিজেপি। বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের ২৩টি আসনে বিজেপি জিতবে। মমতা বলে আসছেন রাজ্যে সবকটি আসনেই বিজেপি পরাজিত হবে, জিতবে তৃণমূল। চন্ডীগড়ে অভিনেতা অনুপম খেরের স্ত্রী কিরণ খেরকে প্রার্থী করেছে বিজেপি। তাঁর বিরুদ্ধে আছেন আম আদমি পার্টির প্রার্থী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ