প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারতের পূর্ণ সমর্থন পাওয়া না গেলে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া পিছিয়ে যাবে বলে মনে করেন মোহাম্মদ জমির

আশিক রহমান : সাবেক রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ বলেছেন, ভারতের পূর্ণ সমর্থন পাওয়া না গেলে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া পিছিয়ে যাবে। কতোদূর পেছাবে সেটা বলা মুশকিল। তবে ভারত-চীন চাইলে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। কারণ ভারত চীনকে বললে তারা শুনবে। রাশিয়াও ভারতের কথা শুনবে। কিন্তু ভারত নির্বাচনের আগে এ বিষয়ে আর কথা বলবে বলে মনে হয় না।

তিনি আরও বলেন, ভারত বলছে, আমরা সব সময় তোমাদের সঙ্গে আছি। আমরা চাই রোহিঙ্গাদের মতো দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা পৃথিবীর আর কোথাও না ঘটুক। তোমরা অবশ্যই বুঝতে পারছো, এখন আমাদের এখানে নির্বাচন চলছে। ২৩ মের আগে এ বিষয়ে কোনো মতামত বা ব্যাখ্যা তোমাদের দিতে পারবো না। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ভারত ও চীন বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছে। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান করতে হলে তাদের সহযোগিতা সবার দরকার। তা না হলে এই সমস্যার সমাধান হবে না।

জাতিসংঘকে আমরা বলেছি আপনার আসুন, দেখুন রোহিঙ্গাদের অবস্থা। তাদের ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করুন। কথা বলুন। মিয়ানমারকে চাপ দিন। চাপ ছাড়া মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেবে না। সবাই বলছেন, আমরা ক্রমাগত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাচ্ছি এবং যাবো। ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থারও আপত্তি নেই। আমেরিকানরাও বলছেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে হবে। ফলে এটা বলা যাবে না রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে বিশ^ বসে আছে। রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে কৌশলগত দিক থেকে বাংলাদেশ যথেষ্ট সচেষ্ট এবং সক্রিয়।

চীন যদি রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে ‘না’ বলে তাহলে কিছুই হবে না। সংকটটি তাদের নয়, আমাদের। চীন দেখে তাদের নিজেদের জাতীয় স্বার্থ। মিয়ানমারের মাধ্যমে তারা একটা পথ খুঁজে পাচ্ছে বে অব বেঙ্গলে। আমরা চাই রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে, কিন্তু তারা যেতে চাইছে না। কেউ যেতে না চাইলে কি গলা ধাক্কা দিয়ে পাঠিয়ে দেওয়া যায়? রোহিঙ্গারা মিয়ানমার ফেরত যেতে ভয় পাচ্ছে। কারণ সেখানে থাকার পরিবেশ নেই। তাদের জন্য স্বস্তির পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে সবার আগে। সেটাই জাতিসংঘের মাধ্যমে নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে বাংলাদেশ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত