প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পশ্চিমবঙ্গে উদ্ধার ৬৭ কোটি কালো টাকা, গতবারের তুলনায় ৭ গুন বেশী, ছাড় পাননি বিচারপতিও

ফাতেমা ইসলাম : ভারতের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে কালো টাকা উদ্ধার করা নির্বাচন কমিশনের লক্ষ্য ছিলো। আয়কর দপ্তর এর জন্য একটি বিশেষ টিম তৈরি করে। রোববার সপ্তম তথা শেষ দফার ভোট। তার আগে শুক্রবার পর্যন্ত বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে ৬৬.৮৩ কোটি অর্থাৎ প্রায় ৬৭ কোটি টাকা। যার মধ্যে আয়কর দপ্তর বাজেয়াপ্ত করে ৫২.৯৫ কোটি টাকা। আর পুলিশ বাজেয়াপ্ত করে ১৩.৮৮ কোটি টাকা। যা অতীতের সমস্ত রেকর্ডকে ছাপিয়ে গিয়েছে। শনিবারও তল্লাশি চলবে। বর্তমান

কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বাজেয়াপ্ত হয়েছিলো ৯.৮৮ কোটি টাকা। এবারের লোকসভা নির্বাচনে তার থেকে সাত গুণ বেশি টাকা উদ্ধার হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ থেকে। ২০১৬ সালের পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোটে বাজেয়াপ্ত হয়েছিলো ৭.৮০ কোটি টাকা। এবার সমস্ত রেকর্ড ভেঙে গিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে এই সংস্কৃতি ছিল না। আসানসোলে এক কোটি টাকার বেশি উদ্ধার হয়েছে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ঘনিষ্ঠ গৌতম চট্টোপাধ্যায়ের কাছ থেকে। বৃহস্পতিবার জয়নগর বকুলতলা থেকে বিজেপির এক নেত্রীর কাছ থেকে ২৪ লক্ষ টাকার বেশি উদ্ধার হয়েছে।

তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় প্রতিটি সভাতেই অভিযোগ করেছেন, বিজেপির পক্ষ থেকে টাকা ছড়ানো হচ্ছে। বহু টাকা আসছে রাজ্যে। ভোট ঘোষণার প্রথম ১০ দিনেই প্রায় ছ’কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছিলো।
তাই সংবিধানের ৩২৪ ধারা মেনে বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় প্রচার শেষ করতেই শুরু হয়েছে রাজ্যজুড়ে নাকা তল্লাশি। তাতে ছাড় পাননি কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতিও। এবারের ভোটে মদ উদ্ধার হয়েছে ১৬ লক্ষ ২৬ হাজার লিটার। যা রেকর্ড। সম্পাদনা : কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত