প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ডোপ টেস্টের দাবিটি সময়োপযোগী

গোলাম মোর্তোজা : ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ডোপ টেস্টের দাবি করেছেন ছাত্রলীগেরই পদ বঞ্চিত নেতা-সদস্যরা। দাবিটি সময়োপযোগী। শুধু ছাত্রলীগ নয়, সবগুলো ছাত্র সংগঠনের উচিত দাবিটি সমর্থন করা। বাম, কোটা সংস্কারসহ অন্যান্য সংগঠনের নেতারা নিজেরা উদ্যোগী হয়ে ডোপ টেস্টের মুখোমুখি হতে পারেন।

ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের ডোপ টেস্টের মুখোমুখি হওয়ার সাহস থাকা দরকার শুধু তাদের নিজেদের ইমেজের জন্য নয়, ছাত্রলীগের ইমেজের জন্যও। কারণ তারা যে ঐতিহ্যবাহী সংগঠনের নেতৃত্ব দিচ্ছেন, সেই সংগঠনেরই নেতাকর্মীরা তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মাদক সেবন ও মাদক ব্যবসার অভিযোগ এনেছেন। অভিযোগ এনেছেন প্রকাশ্যে, গোপনে নয়। বিশ্বাস করতে চাই এই অভিযোগ সত্যি নয়। তবে তা ডোব টেস্টের মাধ্যমে প্রমাণ হোক।

শুধু ছাত্রলীগের নেতারা ডোপ টেস্টের মুখোমুখি হতে বিব্রত হতে পারেন। সে কারণেই এগিয়ে আসা দরকার অন্যান্য সংগঠনের নেতাদের। ডাকসু ভিপি দায়িত্ব নিয়ে এগিয়ে আসতে পারেন। ডোপ টেস্ট করতে হবে আইসিডিডিআরবির মতো বিশ্বাসযোগ্য জায়গা থেকে। ছাত্র সংগঠনের নেতৃত্বে আসার ক্ষেত্রে, নেতৃত্বে থাকার ক্ষেত্রে ডোপ টেস্ট নিশ্চিত করা গেলো, শিক্ষাঙ্গনে মাদকের ভয়াবহতা অনেকটাই কমে যাবে। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত