প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

জাতীয় পার্টিতে অস্থিরতা এবং মধ্যরাতের ‘ক্যু’

সাজিয়া আক্তার : জাতীয় পার্টির নেতা এরশাদের বারিধারাস্থ বাসভবনে রাতের খাবার শেষ করে ছোট ভাই জিএম কাদের উত্তরার পথে খিলক্ষেত পর্যন্ত পৌঁছেছেন মাত্র। এরশাদের বাসভবন থেকে জানানো হয়, এখনি আসতে হবে কারণ গণমাধ্যমকে ডাকা হয়ে গেছে। সাউথ এশিয়া মনিটর

ততক্ষণে দোকান পাট বন্ধ হয়ে গেছে। অনেক খোঁজা খুঁজি শেষে একটি কম্পিউটার কম্পোজের দোকান খোলা পাওয়া গেল। সেখানে কম্পোজ শেষে প্রিন্ট করা হলো জিএম কাদেরকে জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব অর্পণের চিঠি। এরশাদ জানালেন, তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের প্রশ্ন ফেইস করতে পারবেন না। তাছাড়া তিনি আজকাল চোখেও ভালো দেখতে পারছেন না। তাই বড় বড় অক্ষরে প্রিন্ট করে আনা হলো তাঁর সংক্ষিপ্ত বক্তব্য। যদিও গণমাধ্যমের কর্মীদের সামনে তিনি পড়তে শুরু করলেন জিএম কাদেরকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করার চিঠিটি। কিন্তু পড়তে পারছিলেন না। সাহায্য করলেন জিএম কাদের। দায়িত্ব পেলেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের।

৪ মে মাঝ রাতে ছোট ভাই জিএম কাদের জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেয়ার সময় এমনটি ঘটে জাতীয় সংসদের বিরোধী দলের নেতা এরশাদের বাসভবনে।

এরশাদের ঘনিষ্ঠজন স‚ত্রে জানা গেছে, ওই দিন রাতে ভাইকে দেখতে প্রেসিডেন্ট পার্কে যান জিএম কাদের। দলের অস্থিত্ব নিয়ে শঙ্কিত এরশাদ ছোট ভাই জিএম কাদেরকে বলেন, দলটাকে আমি তোর হাতে তুলে দিতে চাই।’

উত্তরে জিএম কাদের বলেন, ‘এভাবে মুখে বললেইতো আর দেয়া হয়ে যায় না। তাছাড়া দলের পদ-পদবি ও সম্পত্তি বেহাত হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা নিয়ে থানায় সাধারন ডায়েরি করেছেন। ফলে যা কিছুই করতে চান আপনাকে নিয়ম মেনেই করতে হবে।

এর ৬ দিনের মাথায় ২৯ এপ্রিল রাতের কোন এক সময় দলটির বনানীস্থ কার্যালয়ের তালা ভেঙ্গে ৪৩ লাখ টাকা চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

যদিও এর আগে ২১ মার্চ জিএম কাদেরকে দলের কো-চেয়ারম্যান পদ থেকে এবং পরের দিন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতার পদ থেকেও সরিয়ে দিয়েছিলেন। পরে ৪ এপ্রিল রংপুরের নেতাদের চাপে জিএম কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদ ফিরিয়ে দেন।

এদিকে জিএম কাদেরকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করায় ক্ষুব্ধ স্ত্রী রওশন এরশাদ। এই রওশন পন্থীরাই জিএম কাদেরকে দায়িত্ব দেয়ার এ প্রক্রিয়াকে ‘মধ্য রাতের ক্যু’ বলছেন।

এদিকে নেতৃত্ব নিয়ে এই টানাপোড়েনের মধ্যেই গত ৯ মে গঠনতন্ত্রে দেয়া ক্ষমতাবলে ৮ জনকে প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবে পদোন্নতি দিয়েছেন এরশাদ।

এদিকে গঠনতন্ত্রকে অবজ্ঞা করে পদোন্নতি দেয়া প্রেসিডিয়াম সদস্যদের তালিকায় নিজের নামটি না দেখে দলের জেষ্ঠ্য যুগ্ম মহাসচিবের পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন নারায়নগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা।

দলের এই অস্থিরতার মধ্যে অভিযোগ উঠেছে রওশনপন্থিরা সরকারের কানে তুলছেন- সবগুলো রাজনৈতিক দলসহ জাতীয় পার্টির যে কয়জন ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করেছিলেন তাদের মধ্যে জিএম কাদেরও ছিলেন। যদিও আগের মেয়াদে তিনি মন্ত্রী ছিলেন। এ পর্যায়ে জাতীয় পার্টির নেতৃত্ব তাঁর হাতে চলে গেলে তিনি উল্টা-পাল্টা কিছু করে বসতে পারেন।

আর কাদেরপন্থিরা বলছেন, সরকারের নিজেদের স্বার্থ্ হেলেও জাতীয় পার্টিকে যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে স্বকীয় রাজনীতি করতে দেয়া উচিত। ওপরই নির্ভর করছে সেই সিদ্ধান্ত।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত