প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চট্টগ্রামের উন্নয়নে ১৮ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প 

নিউজ ডেস্ক : চট্টগ্রামের উন্নয়নে যেসব প্রকল্প নেওয়া হয়েছে সেগুলোর বেশিরভাগেরই সমন্বয়হীনতার কারণে সুফল মিলছে না বলে দীর্ঘদিনের অভিযোগ আছে। বিশেষ করে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বিদায়ী চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম একলা চলো নীতিতে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করতেন। ফলে অনেক প্রকল্পের আশানুরূপ সুফল পায়নি চট্টগ্রামবাসী। তবে সিডিএ-তে নতুন চেয়ারম্যান দায়িত্ব নেওয়ার পর ইতিবাচক কিছুর প্রত্যাশা করছেন অনেকে। ইত্তেফাক।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বারবার সিডিএ’র সাথে সমন্বয় চেষ্টা করেও সফল হতে পারেননি। ফলে নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে সবচেয়ে বড় প্রকল্প নেওয়ার পরও গত বর্ষায় চরম দুর্ভোগে পড়ে চট্টগ্রামের নাগরিকরা। তবে এবার নতুন চেয়ারম্যান জহিরুল আলম দোভাষ দায়িত্ব নেওয়ার পর ইতোমধ্যে কয়েক দফা আলোচনা করেছেন সিটি মেয়র।

চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন নিজে উদ্যোগী হয়ে ইতোমধ্যে সিডিএ কার্যালয়ে গিয়ে নতুন চেয়ারম্যানের সাথে সাক্ষাত্ করেছেন। সেখানে বিভিন্ন প্রকল্পে সমন্বয়ের বিষয়েও আলাপ হয়। পাশাপাশি চসিকের যেসব কাউন্সিলর সিডিএ’র বোর্ড সদস্যের দায়িত্ব পালন করছেন তারাও চসিকের পক্ষ থেকে বিভিন্ন প্রকল্প তদারকি করছেন। চসিকের প্রকৌশলীদের সাথে সিডিএ’র প্রকৌশলী ও জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্পে কর্মরত সেনাবাহিনীর দায়িত্বরতদের সাথেও বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন গতকাল ইত্তেফাককে বলেন, ‘আগের চেয়ারম্যানের সাথে অনেক চেষ্টা করেও সমন্বয় করতে পারিনি। সমন্বয় ছাড়া কোনো ভাবেই উন্নয়ন প্রকল্পের সুফল মিলবে না। বর্তমান চেয়ারম্যান দায়িত্ব নেওয়ার আগে থেকেই বলেছেন- জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্প বাস্তবায়ন চসিকের সাহায্য ছাড়া সম্ভব নয়। আশা করছি এবার ভালো কিছু হবে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত