প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফড়িয়াদের কাছে ৪শ’ টাকায় ধান বিক্রিতে বাধ্য হচ্ছেন কৃষক

মাকসুদা লিপি: সরকার নির্ধারিত সময়ের প্রায় তিন সপ্তাহ পর ধান-চাল সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করলেও সরাসরি ধান বিক্রি করতে পারছেন না কৃষকেরা। ফলে বাধ্য হয়ে ফড়িয়াদের কাছে সরকার নির্ধারিত দামের অর্ধেক মূল্যে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। অন্যদিকে সরাসরি মিলারদের কাছ থেকে চাল সংগ্রহ শুরু করায় লাভবান হচ্ছেন মিল মালিকরা। সময় টিভি

সরকার নির্ধারিত সময়ের চেয়ে ২০দিন পর ধান-চাল সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু হলেও সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে অনেকে এখনো ধান কেনা হয়নি। এতে ধানের বাজার দর এখনো উঠছে না। সরকার নির্ধারিত দামের অর্ধেকের চেয়ে কম দামে ধান বিক্রি করায় ক্ষোভের শেষ নেই কৃষকদের।

বৃহস্পতিবার ধানের ন্যায্য মূল্যের দাবিতে রংপুর নগরীর বীরশ্রেষ্ঠ স্কায়ারের সামনে রাস্তায় ধান ফেলে বিক্ষোভ করেন কৃষকরা। এসময় তারা প্রতিটি হাটে সরকারি ক্রয় কেন্দ্র খুলে নির্ধারিত মূল্যে ধান কেনার দাবি জানান। নইলে আগামী মৌসুমে ধানের আবাদ বন্ধ করে দেয়ার হুঁশিয়ারি দেন কৃষকরা।

ধান এলাকা হিসেবে পরিচিত গাইবান্ধায় শুরু হয়নি সরকারের ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান। এতে অনেকটা বাধ্য হয়েই কৃষকরা ফড়িয়াদের কাছে মাত্র সাড়ে ৪শ’ টাকা দরে ধান বিক্রি করছেন। এতে লাভ তো দূরের কথা উৎপাদন খরচ না ওঠায় দিশেহারা কৃষক।

বৃহস্পতিবার সকালে নওগাঁর মহাদেবপুর খাদ্য গুদামের সামনে অবস্থান নিয়ে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনার দাবিতে মানববন্ধন করেন কৃষকরা। খাদ্য বিভাগ বলছে, কৃষি বিভাগের কাছ থেকে কৃষকদের তালিকা না পাওয়ায় সরাসরি ধান সংগ্রহ শুরু করা যায়নি। এদিকে মিলারদের কাছ থেকে সরকার চাল সংগ্রহ শুরু করায় মূলত লাভবান হচ্ছেন মধ্যস্বত্বভোগীরা।

এদিকে ফেনী সদর খাদ্য গুদামে সরকারিভাবে ধান-চাল ক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। এ সময় কৃষকদের কাছ থেকে সরকার নির্ধারিত দামে ধান ক্রয় করা হয়। সুনামগঞ্জেও শুরু হয়েছে ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত