প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যুগের পর যুগ ধরে মানুষ কিসের আশায় ছুটছে দেশ থেকে দেশান্তরে?

সুপ্রীতি ধর : তাদের কথাগুলো পড়তে গিয়ে আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে যেন। আমি আমার শহরের একটি ছেলেকে চিনি, যার বয়স ৩১ বছর। সে এসেছিলো ইরাকে, ওখান থেকে তুরস্ক এবং পরে এ রকম ভয়াবহ সমুদ্র পাড়ি দিয়ে ইউরোপে। ও যখন আমার সামনে এই গল্প করছিলো, তন্ময় হয়ে শুনেছি। জানালো ওর চোখের সামনে অনেককে মরে যেতে দেখেছে।

ছেলেটার তেমন লেখাপড়া নেই, কিন্তু ভীষণ প্রাণবন্ত আর কর্মঠ সে। ওকে দেখি আর অবাক হই, ওর জীবন সম্পর্কে যে মেধা তা অনেক শিক্ষিত মানুষেরও নেই। ওর সঙ্গে যেদিন প্রথম পরিচয়, সেদিনই সে আমাকে কতোগুলো দোকান চিনিয়ে দেয় কোথায় কী পাবো আমি! বিনিময়ে বাসায় চা খেতে ডাকি। সে অবাক হয়ে বলে, আজই প্রথম কেউ আমাকে বাসায় যেতে বললো! তাকে এই শহরের লোকজন তুচ্ছতাচ্ছিল্য করে ও বললো। গত চার বছরে ও দেশে জমি কিনেছে, পাকা বাড়ি বানিয়েছে এই বয়সেই। আমি অবাক হয়ে শুনি ওর পরিশ্রমের গল্প।

রাশিয়ায় থাকতে দুজন বাংলাদেশি আমার কাছে এসেছিলো লেবানন থেকে। কথা ছিলো তিনদিন থাকবে ওরা, কিন্তু থাকতে হয়েছিলো তিন মাস। ওরাও দালাল ধরে এসেছিলো। যুগের পর যুগ ধরে মানুষ কিসের আশায় ছুটছে দেশ থেকে দেশান্তরে, জানি না। যে টাকা খরচ করে ওরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আসে, সেই টাকা দিয়ে দিব্যি থাকতে পারে দেশে। তাহলে কি আরও কোনো অন্য জীবন ওদের হাতছানি দিয়ে ডাকে? আর কতো মরবে মানুষ? কতোভাবে? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত