প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারতে থাকার জন্য জাতিসংঘ থেকে উদ্বাস্তু সনদের আবেদন জানাল রোহিঙ্গারা

ফাতেমা ইসলাম : উদ্বাস্তু রোহিঙ্গারা শরণার্থী সনদ পাঁচ পেতে জাতিসংঘের কাছে আবেদন জানাল ভারতে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গা মুসলমানরা। মঙ্গলবার রেলওয়ে পুলিশ গুয়াহাটি রেলওয়ে স্টেশন থেকে পাঁচ রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার করার পর জানা যায় এ তথ্য।- যুগশঙ্খ

জিআরপি কর্তারা জানান, গ্রেপ্তার হওয়া ৫ রোহিঙ্গা দিল্লি যাওয়ার জন্য জড় হয়েছিলেন। নয়া দিল্লিতে জাতিসংঘের হাই কমিশনার অব রিফিউজি (ইউএনএইচসিআর) থেকে শরণার্থীর প্রশংসাপত্র পাওয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন ওরা।
পুলিশ জানায়, সরকারী রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি) কর্মীরা তাদের ১নং প্ল্যাটফর্ম থেকে গ্রেপ্তার করেছে। প্রথমে, জিআরপি দুটি ছেলে এবং একটি নারীকে গ্রেপ্তার করে। তারা বৈধ পরিচয়পত্র দিতে না পারায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয় তাদের। জিজ্ঞাসাবাদের পর, তিনজনের পাশাপাশি আরও দুই পুরুষকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রিপোর্ট অনুযায়ী গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা মূলত মায়ানমার থেকে দিল্লিতে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন, মক্কাএময়াম সাহেনাস, এমডি জুবার, মোহম্মদ কামাল হোসেন, হাকিম ও মোহম্মদ কালিমুলা। ২০১৮ সালে তারা মণিপুর থানায় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। রেল পুলিশ জানিয়েছে, তাদের কাছ থেকে মায়ানমারের ফলের প্যাকেট, মিষ্টি, সাদা কফি এবং বিভিন্ন ধরনের সংরক্ষিত খাদ্য পাওয়া গেছে।

অবৈধভাবে বাংলাদেশ থেকে এদেশে অনুপ্রবেশের জন্য স¤প্রতি আট নারী ও চার পুরুষসহ মোট ১২ জন সন্দেহভাজন রোহিঙ্গা শরণার্থীকে মিজোরাম পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। সন্দেহভাজন রোহিঙ্গারা বাংলাদেশ থেকে মিজোরামের বৈধ ভ্রমণের কাগজপত্র নথি নিয়ে প্রবেশ করেছিলেন। তারা মিজোরামের বোংকওয়ান এলাকায় একটি নারীর বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন।

এর আগে এপ্রিল মাসে আটজন রোহিঙ্গা মহিলাকে ভারত-মায়ানমার সীমান্তে অবৈধভাবে মিজোরামে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করার জন্য আটক করা হয়েছিলো এবং তাদেরকে ফেরত পাঠানো হয়।

২০১১ সালের আগস্ট থেকে সামরিক অভ্যুত্থানের পর মায়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে ৭০ হাজার এরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান পালিয়ে যায় প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশে, যার ফলে বিপুল শরণার্থী সঙ্কট সৃষ্টি হয়। সম্পাদনায়- রেজাউল আহসান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত