প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আয়েশী জয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করলো বাংলাদেশ

আক্তারুজ্জামান : ২৪৮ রানের লক্ষ্যটা ছোট হলেও বেশ সময় লেগেছে বাংলাদেশের। ৪টি অর্ধশত রানের জুটিতে আয়েশী জয় নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। আয়ারল্যান্ডের ম্যালাহাইডে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে ১৬ বল হাতে রেখে উইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে মাশরাফি বাহিনী।

শুরুতে তামিম, সাকিব এবং সৌম্য তিনজনই সাজঘরে ফেরেন অ্যাশলে নার্সের ঘূর্ণির ফাঁদে পড়ে। ১০৭ রানে ৩ উইকেট যাওয়ার পর মুশফিক ও মিঠুন জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় টাইগাররা। বাংলাদেশ দলকে বেশ ভোগান নার্স। ২৪৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৫৪ রানের ওপেনিং জুটি ভাঙেন নার্স। ২১ রানে বোল্ড হয়ে ফেরেন তামিম। এরপর একই ওভারে সাকিব ও সৌম্যকে ফেরান নার্স। ৩৫ বলে ২৯ রান করেন সাকিব এবং ৬৭ বলে ৫৪ রান করে ফেরেন সৌম্য।

এরপর মুশফিক-মিঠুন জুটি দলের হাল ধরে জয়ের পথ দেখান। ১৯০ রানে যখন মিঠুন ফিরে গেলেন ততক্ষণে জুটি ৮৩ রান উপহার দিয়ে গেছে। পরে মাহমুদউল্লাকে নিয়ে দলের জয় প্রায় নিশ্চিত করে ৯ রান দূরে থাকতে সাজঘরে ফেরেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’ মুশফিক। ৬২ রানে ফিরে যান তিনি। এরপর সাব্বিরকে নিয়ে দেখেশুনেই জয়ের বন্দরে তরী নোঙর করেন রিয়াদ।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে মুস্তাফিজ-মাশরাফিদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে ২৪৭ রান তোলে ক্যারিবীয়রা। যদিও বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিয়েছিল জেসন হোল্ডারের দল। কিন্তু সাকিবের রান টেনে ধরা, মাশরাফির ব্রেক থ্রু আর মুস্তাফিজের টপাটপ উইকেটে দেখেশুনে খেলতে বাধ্য হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে চোখ রাঙানি দিয়ে ৮৭ রান করেন শাই হোপ। এছাড়া দলনায়ক হোল্ডার করেন ৬২ রান।

বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে ২৭ রানে একটি উইকেট শিকার করেন সাকিব। কিন্তু অভিষিক্ত রাহীর শুরুটা ভালো হয়নি। বরং ভুলেই যেতে চাইবেন ওডিআই জার্সি পরে মাঠে নামার শুরুর দিনটা। ৯ ওভারে ৫৬ রান দিয়ে কোন উইকেট পাননি। মুস্তাফিজ ৪টি এবং মাশরাফি ৩টি উইকেট নেন। আরেকটি উইকেট নেন মিরাজ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত