প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিশুরা নিয়মিত মসজিদে এলে সাইকেল পুরস্কার দেন ইমাম

আল-আমিন : মালয়েশিয়ার কেলান্তানে অবস্থিত মাহমুদী মসজিদের সিনিয়র ইমামের দায়িত্ব পালন করেন বাহরিন ইউসুফ। সম্প্রতি মসজিদে শিশুরা নিয়মিত নামাজ পড়লে সাইকেল পুরস্কার দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি। নিউ স্ট্রাইট টাইমস রিপোর্ট এর বরাত দিয়ে ইসলামভিত্তিক অনলাইন ম্যাগাজিন এবাউট ইসলাম এ খবর দিয়েছে।

বাহরিন ইউসুফ বলেন, শিশুদের নামাজের প্রতি উৎসাহ দেওয়ার জন্য অনেকে অনেককিছু করি। শিশুদের শিশুবয়স (০৭ বছর) থেকেই নামাজের শিক্ষা দেওয়ার জন্য প্রিয় নবী সা. নির্দেশ দিয়েছেন। রাসুলের বাণীকে বাস্তবায়নের জন্য আমি এমন উদ্যোগ নিয়েছি। তিনি বলেন, ‘যারা ফজর, মাগরিব ও এশার নামাযের জন্য পূর্ণ উপস্থিতি প্রদর্শন করবে তারা সাইকেল পাবে। প্রাথমিকভাবে তারা সাইকেল পাওয়ার জন্য মসজিদে আসবে। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে নামাজের প্রতিও তাদের আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে।

গত বছর শতাধিক শিশু এই ইভেন্টে অংশ নিয়ে পুরস্কার নিয়েছিল। চলতি বছর যারা শর্ত পূরণ করবে তারা প্রত্যেকেই একটি সাইকেল জিতবে। ২৮ তম তারাবির দিন সবাইকে পুরস্কার বিতরণ করা হবে বলে জানান বাহরিন ইউসুফ। গত বছর ইভেন্টে অংশ নেওয়া মোহাম্মদ হাকি বলেন, আমি গতবছর এ ইভেন্টে অংশ নিয়ে পুরস্কার পেয়েছি। বর্তমানে সাইকেলটি আমার কাছে আছে। এই ঘোষণার পর মসজিদে শিশুদের উপস্থিতি অনেক বেড়ে গেছে বলে নিউ স্ট্রাইট টাইমস জানিয়েছে। মুহাম্মদ নামে এক মুসুল্লি বলেন, আমি আমার বন্ধুদের বিনামূল্যে সাইকেল উপহার সম্পর্কে বলেছি, যেন তারাও মসজিদে আসতে পারে। সম্মিলিত নামাজ আদায় আমি সবচেয়ে বেশি উপভোগ করি।

ম্যাগাজিনটি জানায়, নামাজ পড়ে সাইকেল লাভ মালয়েশিয়াই প্রথম নয়। তবে সেখানে ভিন্ন রকমের সাড়া পড়েছে। এরকম ঘোষণার মাঝে রয়েছে, ২০১৮ সালে মিশরের আল-বেহিরার একটি মসজিদ। সেখানে এমন প্রতিযোগিতার ঘোষণা দেওয়া হলে নামাজে শিশুদের আগ্রহ অনেক বেড়ে যায়। সর্বপ্রথম প্রতিযোগিতার এ ধারণাটি ইস্তাম্বুলের ফাতিহ মসজিদ চালু করেছিলো। তারাই প্রথম বাচ্চাদের জন্য উপহার বাইসাইকেল সরবরাহ করে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত