প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বড়লেখায় আত্মহত্যার চেষ্টাকারী ষোড়শীর ঠাঁই হলো নিরাপত্তা হেফাজত

স্বপন দেব, মৌলভীবাজার : বড়লেখায় বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টাকারী পিতৃ-মাতৃহীন ষোড়শীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। সোমবার রাতে বাদি হয়ে ব্যতিক্রমী এ মামলাটি রুজু করেছেন থানার এসআই মিন্টু চৌধুরী। ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ ওই ষোড়শীকে আদালতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়েল ম্যাজিস্ট্রেট হরিদাস কুমারের আদালত তাকে সেভ কাস্টডিতে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

থানা পুলিশ ও ভিকটিম সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার নিজবাহাদুর ইউপির নিজ বাহাদুরপুর গ্রামের আলফাজ উদ্দিনের ষোড়শী মেয়ে ডলি বেগম (১৬) পাশবিক নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে নারি ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছে। মামলাটি আদালতে চলমান থাকলেও কোন অগ্রগতি ছিল না।

গ্রামের লোকজনের নানা কটুক্তি, সমালোচনা ও পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে স্বজনদের হয়রানী আর মামলা সংক্রান্ত মানসিক চাপে ষোড়শী সোমবার দুপুরে নিজ বাড়িতে আত্মহত্যার উদ্দেশ্যে বিষপান করে। মুহর্ষু অবস্থায় পরিবারের সদস্যরা দ্রত তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে পুলিশ তার বিরুদ্ধে ৩০৯ ধারায় থানায় মামলা রেকর্ড করে। চিকিৎসকের তাৎক্ষনিক চিকিৎসায় সে সুস্থ হলেও শেষ পর্যন্ত তার টাই হয়েছে সেভ কাস্টডিতে।

মামলার বাদি এসআই মিন্টু জানান, পিতৃমাতৃহীন ডলি বেগম নানা বাড়িতে থাকতো। সেখানে চতুর্থ শ্রেণীতে ওঠার পর লেখাপড়া বন্ধ করে দেয়।

পরে চাচার বাড়িতে আসলে বিভিন্ন কারণে চাচারাও তার ওপর বিরক্ত হয়ে উঠেন। এসব নানা কারণে সে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে।

বড়লেখা থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, আত্মহত্যা পেনাল কোড ৩০৯ ধারার শাস্তিযোগ্য একটি অপরাধ। প্রচলিত আইনে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আত্মহত্যা চেষ্টাকারী ষোড়শীকে সুস্থ হওয়ার পর আটক করে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ আদালত তাকে মৌলভীবাজার জেল হাজতের সেভ কাস্টডিতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত