প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্বর্ণমন্দির ছুঁয়ে মনোনয়ন পেশ সানি দেউলের, বয়স পাগড়ি নিয়ে শোরগোল ভারতজুড়ে

মৌরী সিদ্দিকা : দিন দুয়েক আগেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সাক্ষাৎপর্বে তাঁকে দেখা গিয়েছিল পাগড়ি ছাড়া।
সকালে ছিল গাঢ় নীল। বেলা গড়াতেই পাগড়ির রং বদলে গেল বাসন্তী হলুদে। অমৃতসরের স্বর্ণমন্দিরে প্রার্থনা সেরে আজই গুরুদাসপুরের বিজেপি প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন সানি দেউল। তার পর গুরুদাসপুরেই একটা সভা সেরে ভোট দিতে উড়ে গেলেন মুম্বইয়ে। ব্যস্ত ধর্মেন্দ্র-পুত্র সানি। মনোনয়ন পত্র জমার দিনে তবু নানা মহলে দিনভর আলোচনা চলল শুধু তাঁর পাগড়ি নিয়েই!-আনন্দ বাজার

সানির এই পাগড়ি সাজ নিয়ে মানুষের হাজারো প্রশ্ন ? ভোটাদাতাদের মনে ‘গদর/বর্ডার’-এর স্মৃতি উস্কে দিতে চাওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই সেই প্রশ্ন তুললেন।

সাত দিনও হয়নি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন সানি। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংহ ইতিমধ্যেই তাঁকে ‘ফিল্মি ফৌজি’ বলে কটাক্ষ করেছেন। প্রয়াত বিনোদ খান্নার চার বারের জেতা আসন গুরুদাসপুরে ভোটে দাঁড়ানোটা তাই সানির কাছে এমনিতেই একটা বড় চ্যালেঞ্জ। অন্য দিকে, সানির টিকিট পাওয়া নিয়ে দলের প্রতি ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন বিনোদের স্ত্রী কবিতা খান্না। তাই কংগ্রেসের প্রার্থী তথা বিদায়ী সাংসদ সুনীল জাখরকে হারানোর পাশাপাশি খান্না পরিবারের মন জয় করাটাও সানির কাছে এখন যুদ্ধেরই মতো। আজ অবশ্য কবিতা দাবি করেছেন, ‘বিজেপি যোগ্য লোককেই প্রার্থী করেছে।

সোমবার দিনভর অবশ্য তাঁকে দেখা গেল ফুরফুরে মেজাজেই। স্বর্ণমন্দিরে প্রার্থনা সেরে ভাই ববি দেউল এবং পঞ্জাবের শীর্ষস্থানীয় বেশ কয়েক জন বিজেপি নেতাকে নিয়ে গুরুদাসপুরে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে যান সানি। ধর্মেন্দ্র যাননি। সম্ভবত বাড়ি থেকেই ছেলের জন্য ভোট চাইলেন টুইটারে। লিখলেন, ‘আপনাদের সবার সমর্থন চাই। সানি জিতলে সেই জয় হবে আপনাদেরই, গোটা গুরুদাসপুরের জয়।’ এ দিনই বিহারের পাটনা সাহিব কেন্দ্রে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন বিজেপি ছেড়ে হালে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া তারকা প্রার্থী শত্রুঘন সিন্হা। তবে পাটনা সাহিব নয়, ‘বিনোদ-ভূমি’-তে সানির কী হাল হয়, তা নিয়েই যেন বেশি কৌতূহলী দেখাল সোশ্যাল মিডিয়াকে। সেখানে দিনভর আলোচনা চলল তাঁর পেশ করা হলফনামা নিয়েও। যেখানে ‘সানি দেওল’ নামের উল্লেখ শুধু প্রার্থীর সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে। আদতে তিনি অজয় সিংহ ধর্মেন্দ্র দেউল। এত দিন কাগজে-কাগজে তাঁর বয়স ৬২ লেখা হচ্ছিল। এখন হলফনামায় জানা গেল, সানি এখন ঊনষাট। সানিকে ‘তরুণ অভিনেতা’ বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হয়েছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। এখন ঠাট্টা হচ্ছে সানির বয়স নিয়েও।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত