প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাপা অফিসে টাকা চুরি তদন্তের পর বলা যাবে কে চোর, বললেন রাঙা

ইউসুফ আলী বাচ্চু : জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙা বলেছেন, অফিসের যে টাকা চুরি টাকা চুরি হয়েছে সেখানে রংপুরে এরশাদের বাড়ি কাজ চলে সেই টাকা ছিল, ষ্টাফদের বেতনের টাকা, অফিস ভাড়া মিলিয়ে ৪৩ টাকা লক্ষ টাকা ছিল। যদিও ভবনের নিরাপত্তার জন্য ২ জন নিরাপত্তা প্রহরী ছিল তার পরেও তালা ভেঙ্গে এই টাকা চুরি হয়। তবে কারা চুরি করেছে তা আমরা পুলিশের তদন্তের পর জানতে পারব। এখনই বলতে পারছি না, কে বা কারা টাকা চুরি করেছে। রাস্তার ওপরেই সিটি টিভি ক্যমেরা রয়েছে, কিন্তু আমাদের ভবনের মধ্যে কোন সিসিটিভি ক্যামেরা নেই। তবে ফুটেজ দেখলে বলা যাবে কে চুরি করেছে।

পার্টির ব্যাংক এ্যাকাউন্ড থাকার পরেও কেন এত পরিমান টাকা অফিসে রাখা হয়েছে, এমন প্রশ্নে জবাবে রাঙ্গা বলেন, আজকে মাসের শেষদিন,আগামীকাল ব্যাংক বন্ধ থাকার কারনে টাকা গুলো তুলে অফিসে রাখা হয়েছিল এবং আজকেই রংপুরে ও বেতন বাড়ি ভাড়ার টাকা দেয়ার কথা ছিল। হয়তো কেউ এই টাকার কথা জানতো। সিআইড থেকে একটি টিম আসছে ওনরা তদন্ত করছে।

মামলা করেছেন কিনা এমন প্রশ্নে মহাসচিব বলেন, মামলা এখনো করিনি তবে তদন্ত শেষ হলে অফিসের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হবে।

এটা চুরির ঘটনা কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,হ্যা অবশ্যই চুরির ঘটনা কারণ সেখান থেকে কোন কাগজপত্র নেয়নি শুধু টাকা নিয়েছে।

কিছুদিন আগে পার্টির চেয়ারম্যান থানায় একটি জিডি করেছেন তার সই জাল হবার আশংঙ্কায় এটার কোন সম্পর্ক আছে কিনা আজকের ঘটনার সঙ্গে, এমন প্রশ্নের জবাবে রাঙা বলেন, বয়স হলে মানুষের একটু সমস্যা তো হয়। অনেক সময় দেখা যায় ব্যাংকে চেক পাঠিয়েছেন স্বাক্ষর মিলছে না তখন তারা ফোন করে এ কারণে অনেক কিছু ছোট করছেন এবং স্বাক্ষর সংশোধন করেছেন। যাতে কেহ স্বাক্ষর জালের সুযোগ না নিতে পারে।

ভেতর থেকে এই টাকা চুরির সঙ্গে কেহ জড়িত আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সিআইডি তদন্ত ছাড়া আমি কারো নাম বলতে পারব না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত