প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হাটহাজারী তেলবাহী ওয়াগন লাইনচ্যুত, পরিবেশ বিপর্যয়ের শঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা

হ্যাপি আক্তার : চট্টগ্রামের হাটহাজারী ১১মাইল এলাকায় ফার্নেস অয়েলবাহী ট্রেনের ৩টি ওয়াগন লাইনচ্যুত হয়ে খালে পড়ে গেছে। এতে তেল ছড়িয়ে পড়েছে প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদীতে। দ্রুত ওয়াগনগুলো সরিয়ে না নিলে নদীর পরিবেশ বিনষ্ট হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করেছেন বিশেষজ্ঞরা।- চ্যানেল আই।

হাটহাজারী একশ মেগাওয়াট পাওয়ার প্ল্যান্টের জন্য চট্টগ্রামের বটতলী রেল স্টেশন থেকে ফার্নেস অয়েল বহনকারী ৭টি ওয়াগন করে তেলগুলো নেয়া হচ্ছিলো। সোমবার হাটহাজারীর এগার মাইল এলাকায় পাওয়ার প্ল্যান্টের কাছাকাছি চেনখালী খালের ব্রীজের উপর লাইনচ্যুত হয় ৩টি ওয়াগন। তিনটি ওয়াগনে ২৫টন করে মোট ৭৫টন তেল মজুদ রয়েছে। বেশি ক্ষতিগ্রস্ত একটি ওয়াগন থেকে তেল নিঃসরণ হয়ে চেনখালী খালের সাথে মিশে হালদা নদীতে প্রবেশ করছে।

হালদা নদী গবেষক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মঞ্জুরুল কিবরিয়া বলেন, যে কোনোভাবে হোক যতদ্রুত সম্ভব ওয়াগনগুলো উদ্ধার করা হোক। অন্যথায় প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদী ও কর্ণফুলী নদী সম্পূর্ণ ধ্বংস হওয়াসহ পরিবেশের উপর ভয়াবহ বিপর্যয় নেমে আসবে। যদি অর্ধেক তেলও হালদায় যায়, তাহলে আগামী ১০ বছরে কোনো প্রকার জীব বৈচিত্র থাকবে না।

তেলগুলো হালদা নদীতে যেতে না পারে সেজন্যে প্রাথমিক পর্যায়ে চেনখালী খালে বাঁধ দেয়া সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাটহাজারী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন। তিনি বলেন, তিন থেকে চারটি জায়গায় বাঁধ দেয়া হচ্ছে। যাতে হালদার কাছাকাছি এই তেল না যেতে পারে।
কী কারণে এ ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটেছে, তা খতিয়ে দেখতে রেলওয়ের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সম্পাদনা : জামাল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত