প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

একটি বাঘ হত্যার জন্য উন্মত্ত মানুষের নিষ্ঠুর আয়োজন (ভিডিও)

সালেহ্ বিপ্লব : সিলেটে বাঘ হত্যার ইতিহাস অনেক পুরানো। বিশেষ করে কানাইঘাটে প্রতি বছরই আয়োজন করে বাঘ হত্যা করা হয়। কাজটা যে কতোটা জঘন্য, কতোটা অমানবিক, সে নিয়ে যেন কোন ভাবনাই নেই এই অঞ্চলের মানুষের। আর বনবিভাগও যেন এখানকার সামাজিক রীতিনীতির কাছে অসহায়। যেখানে খুব সহজেই ডার্ট ছুঁড়ে বাঘকে ঘুম পাড়িয়ে ফেলা যায়, সেটি করেন না বনবিভাগের কর্তারা। কেন করেন না? তা বুঝতে হলে জানতে হবে এই এলাকার বাঘ-হত্যার বৃত্তান্ত।

একাত্তর টিভির সিনিয়র রিপোর্টার হোসেন সোহেল ফেসবুকে জানান, কানাইঘাটের পাহাড়গুলোতে প্রতিবছর বাঘ আসে পার্শ¦বর্তী ভারতের পাহাড় থেকে। সাধারণত খাবারের সন্ধানে, কখনোবা দলছুট হয়ে বাঘগুলো বাংলাদেশ অংশে আসে। একসময় নেমে আসে লোকালয়ে। গত বছরের শেষের দিকে এখানে বিরল প্রজাতির দুটি কালো বাঘ নামলে একটিকে আটক করতে সক্ষম হয় এলাকাবাসী। অবশ্য বাঘটি চিটাগাং সাফারি পার্কে নেয়ার পথে মারা যায়।

বাঘ আসে সাধারণত মূলাগুল, বড়বন্দ, সুরইঘাট, কালিনগর, নিহালপুর, লক্ষীপ্রসাদ এলাকার গ্রামগুলোতে। বাঘ নামলে লোকজন সুকৌশলে বাঘের অবস্থানের চারদিকের বন ও টিলা ঘিরে ফেলে। জাল দিয়ে বাঘকে আটক করে। লোকালয়ে বাঘের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়ার পর পাহাড়ী এলাকার মসজিদগুলোতে মাইকিং করে এলাকাবাসীকে সতর্ক করে সকল মহল্লা থেকে পাট দিয়ে তৈরী বিশেষ আকৃতির অনেকগুলো জাল সংগ্রহ করা হয়। তারপর বাঘের অবস্থান যে টিলায়, তার তিনদিক জাল দিয়ে ঘেরাও করে একদিক খোলা রাখা হয়। এই একদিক খোলা ব্যারিকেডকে বলা হয় খেওর। এবার সকল এলাকার লোকজন ঢাক, ঢোল পিটিয়ে, তবলা, বাঁশি বাজিয়ে লাঠিসোটা ও নানান ধরনের অস্ত্র নিয়ে বাঘকে জালের ভিতর ঢুকিয়ে ধীরে ধীরে খেওড়ের খোলা মুখটি ছোট করতে থাকে। আর এ সময়ে জনতা নানা ধরনের গান ও হৈ হুল্লোড় করতে করতে খেওড়ের পরিধি টিলার পাদদেশে ছোট করে আনে। চারদিকে পাটের জাল দিয়ে ঘেরাও করা বৃত্তাকার এ স্থানটিতে জমে উঠে বাঘ খেওড়ের মেলা। দূর দূরান্ত থেকে মানুষ আসতে থাকে একনজর বাঘটি দেখার জন্য।

এক সময় ধরা পড়া বাঘ মেরে ফেলার রেওয়াজ ছিলো। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ সরকার বাঘ হত্যার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও এ নির্মমতা কিছুটা কমে আসে। তারপরও পুরানো রীতিনীতি থেকে বের হয়ে আসতে পারেনি এ এলাকার মানুষ। লোকালয়ে চলে আসা বাঘটিকে হত্যা না করলেও যে প্রক্রিয়ায় বাঘটিকে আটক করা হয়, তাতে বাঘটি এমনিতেই মরে যায়।
এবারও সেই নির্মম নিষ্ঠুর আচরণ দেখা গেলো কানাইঘাটে। ভারত থেকে এপারে চলে আসা একটি বাঘকে ধরার জন্যে নারকীয় উন্মত্ততায় মেতে ওঠে ওই এলাকার মানুষ। বাঘকে কোনঠাসা করার জন্য একশটির মতো গাছ পুড়িয়ে ফেলে তারা। তবে শেষ পর্যন্ত বাঘটিকে ধরা যায়নি, এটি একটি সুখবর।

Posted by Hossain Sohel on Thursday, April 25, 2019

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত