প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএনপি নেতাদের চার ঘণ্টার ডিগবাজি

নিউজ ডেস্ক : গত ২৫ এপ্রিল সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন বিএনপি থেকে নির্বাচিত জাহিদুর রহমান। এরপর সোমবার (২৯ এপ্রিল) বিকালে দলটির আরও চার সংসদ সদস্য শপথ নিয়েছেন। এই শপথ গ্রহণকে কেন্দ্র করে বিকাল ৪টায় সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সংবাদ সম্মেলন করেন, এরপর শপথ নিতে সংসদ সংসদ ভবনে হাজির হন বিএনপির চারজন, সর্বশেষ রাত ৮টায় দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সংবাদ সম্মেলন পর্যন্ত চার ঘন্টায় তিন রকমের কথা বলেছেন নেতারা।

বিকালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে নির্বাচিত হারুনুর রশীদ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সিদ্ধান্তে শপথ নিয়েছি বললেও সংবাদ সম্মেলনে ‘বিএনপির নির্বাচিত এমপিদের ভাগিয়ে নেওয়া হচ্ছে’ বলে অভিযোগ করেন সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তবে শপথ অনুষ্ঠানের পর মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘দলীয় সিদ্ধান্তে সংসদে গেছে বিএনপি।’

তবে শপথ নিতে বাকি থাকা একমাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম কী সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন সে বিষয়টি তিনি স্পষ্ট করেননি। আপনি কবে শপথ নেবেন এবং শপথের সময় চেয়ে চিঠি দিয়েছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, ‘অপেক্ষা করুন, সময়মতো জানতে পারবেন।’

এর আগে সোমবার সকালে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ নিচ্ছেন না, বিষয়টি পরিষ্কার হলেও আবদুস সাত্তার ভুঁইয়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২) ও মোশাররফ হোসেনের (বগুড়া-৪) সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছিল না। সকাল থেকেই তাদের সেলফোন বন্ধ থাকায় শপথ নেওয়ার বিষয়টি ছিল ধোঁয়াশায়।

পরে সোমবার বিকাল ৫টার দিকে সংসদে শপথ নিতে যান বিএনপি থেকে নির্বাচিত চারজন সংসদ সদস্য। তারা হলেন— চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের হারুনুর রশীদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের আমিনুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের আবদুস সাত্তার ভুঁইয়া, বগুড়া-৪ আসনের মোশাররফ হোসেন।

এসময় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে নির্বাচিত হারুনুর রশীদ বলেন, ‘যে ছয়জন নির্বাচিত ছিলাম তার মধ্যে পাঁচজন দলীয় সিদ্ধান্তে বিশেষ করে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে শপথ নিয়েছি। সংসদে গিয়ে দলীয় চেয়ারম্যান ও তিনবারের প্রধানমন্ত্রী কারান্তরীণ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি তুলবো।’

তবে তার বক্তব্যের কিছু আগে সোয়া ৪টার দিকে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী অভিযোগ বলেন, বিএনপির নির্বাচিত এমপিদের ভাগিয়ে নিয়ে সংসদকে বৈধতা দেওয়া যাবে না। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের নির্বাচিত এমপি উকিল আব্দুস সাত্তার ভুঁইয়াকে জোর করে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব।

তিনি বলেন, ‘গত ২৭ এপ্রিল এক সভায় তিনি (উকিল আব্দুস সাত্তার) ঘোষণা দেন, দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নেবেন না। তারপর সরকারি একটি সংস্থার কয়েক ব্যক্তি তার সঙ্গে নিরিবিলি কথা বলতে চাইলে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন। এরপর তাকে জোর করে তুলে নেওয়ার চেষ্টা হয়, কিন্তু আমাদের নেতাকর্মীদের প্রতিরোধের মুখে তা সফল হয়নি।’

পরে রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান গতকাল সন্ধ্যায় জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করেন। বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলেন। পরে জাতীয় স্থায়ী কমিটির সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার সর্বময় ক্ষমতা অর্পণ করা হয় তারেক রহমানের ওপরে। আমাদের গঠনতন্ত্রের ধারা অনুযায়ী তিনি তার সিদ্ধান্তের কথা জানান। সেই সিদ্ধান্তেই আজকে চারজন এমপি শপথ নেন।’

সূত্র : বাংলাট্রিবিউন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত