প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সেরা ওয়ার্ডের জন্য প্রতি বছর মেয়র অ্যাওয়ার্ড ও মুজিব বর্ষ অ্যাওয়ার্ড প্রদানের ঘোষণা মেয়র আতিকের

সুজিৎ নন্দী: ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, সেরা ওয়ার্ডের জন্য এখন থেকে প্রতি বছর মেয়র অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে। তাছাড়া সর্বোত্তম নাগরিক সেবা প্রদানকারী ওয়ার্ডের জন্য ২০২০ সালে দেয়া হবে মুজিব বর্ষ অ্যাওয়ার্ড। মশক নিয়ন্ত্রণ, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমসহ অন্যান্য নাগরিক সেবা প্রদানে উৎসাহ বাড়াতে এই পুরষ্কার দেয়া হবে। আজ গুলশানস্থ ডিএনসিসির নগর ভবনে ‘ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগের বাহক এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে করণীয়’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় ডিএনসিসির কাউন্সিলরবৃন্দ, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধের সাথে যুক্ত বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থা, বিভিন্ন সোসাইটির নেতৃবৃন্দদের উপস্থিতিতে মেয়র এই ঘোষণা দেন।

মেয়র বলেন, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে জনসচেতনতার বিকল্প নেই। এ লক্ষ্যে ডিএনসিসির প্রতিটি অঞ্চল ও ওয়ার্ডে জনগণকে সম্পৃক্ত করে মতবিনিময়, অবহিতকরণ সভা ও প্রচারণা চালানো হবে। সামাজিক গণমাধ্যমসহ সকল গণমাধ্যমে সচেতনতা বাড়াতে ইতোমধ্যে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

মতবিনিময় সভায় আমন্ত্রিত অতিথি লেখক সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে শতকরা ৯০ ভাগ কাজ জনগণের। মেয়রকে সবাই সহযোগিতা করলে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে। আমাদের তরুণ সমাজসহ সবাইকে এতে সম্পৃক্ত করতে হবে। ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ার বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়বৃন্দ ডিএনসিসির পাশে থাকবেন বলে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান জানান।

অন্যান্যেদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, চিত্রশিল্পী মনিরুজ্জমান, ড. মঞ্জুর আহমেদ চৌধুরী, মশা গবেষক অধ্যাপক কবিরুল বাশার, অধ্যাপক মিরজাদা সেবরিনা ফ্লোরা, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, ইস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক শহীদ আখতার হোসেন, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হাই, প্যানেল মেয়র জামাল মোস্তফা, কাউন্সিলর দেওয়ান আব্দুল মান্নানসহ উদ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত