প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পদ্মার তলদেশ দিয়ে শরীয়তপুরের দুর্গম চরে যাবে বিদ্যুৎ, আলোকিত হবে ৫০ হাজার পরিবার

হ্যাপি আক্তার : পদ্মার তলদেশ দিয়ে এবার বিদ্যুৎ যাচ্ছে দুর্গম চরে। শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার দুটি ইউনিয়ন এবং ভেদরগঞ্জ উপজেলার একটি চরে শিগগিরই পৌঁছাবে বিদ্যুৎ। প্রাথমিকভাবে ১০ মেগাওয়াট ক্ষমতার উপকেন্দ্র নির্মাণ করা হলেও পর্যায়ক্রমে তা বড়ানো হবে বলে জানিয়েছে, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড। চ্যানেল টোয়েন্টিফোর।

চারদিকে নদী থাকায়, বিদ্যুৎসহ অনেক সুবিধাই অধরা নড়িয়ার দুটি আর ভেদরগঞ্জ উপজেলার ১টি ইউনিয়ন। তবে এবার পদ্মার তলদেশ দিয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ আসছে এই চর অঞ্চলে। ফলে কেরসিনের কুপির আলোয় নির্ভরশীল এখানকার বাসিন্দাদের মনে এখন খুশির ঝিলিক। এলাকাবাসী জানান, আমরা কখনোই ভাবিনি এই চরাঞ্চলে বিদ্যুৎ আসবে। বিদ্যুৎ আসলে এই অঞ্চলের মানুষের জীবন মান উন্নত হবে।

কৃষিনির্ভর এই চরের কৃষকরাও অধীর অপেক্ষায় বিদ্যুতের জন্য। কেননা, বিদ্যুৎ আসলে তৈরি হবে নানা সম্ভবনা। বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড এরইমধ্যে শুরু করেছে, নদীর নিচ দিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ স্থাপনের কাজ।

বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড’র (পরিবল্পনা ও উন্নয়ন) সদস্য মুহাম্মদ আবদুস সালাম বলেন, এই অঞ্চলটি দেশের মূল ভ‚-খÐ থেকে বিচ্ছিন্ন। এই অঞ্চলে খুটির মাধ্যমে লাইন আনা সম্ভব না। তবে স্বল্প সময়ের মধ্যে একমাত্র উপায় হলো সাবমেরিন ক্যাবল বসিয়ে বিদ্যুতের লাইন টানা সম্ভব।

স্থানীয় সংসদ সদস্য পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেন, বিদ্যুৎ সংযোগ হলে এই অঞ্চলটি উপ শহরে পরিণত হবে। বদলে যাবে চর অঞ্চল মানুষের জীবন যাত্রা। তার সাথে পদ্ম সেতুর পাশেই এই শহরটির অবস্থান থাকায় পর্যটন এলাকা হতে পারে। সম্পাদনা : জামাল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত