প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুগন্ধি শহরে জয়ের সুবাস যাদব বউয়ের

ডেস্ক রিপোর্ট : গতবারের লোকসভা নির্বাচনে ‘মোদি হাওয়া’য় ভর করে উত্তরপ্রদেশের রেকর্ডসংখ্যক আসন জিতে নেয় বিজেপি। কিন্তু সেবারও রাজ্যের কনৌজ আসনে মাত্র ২০ হাজার ভোটের ব্যবধানে কোনো উতরে যায় সমাজবাদী পার্টি (সপা)। যুগান্তর।

এমপি নির্বাচিত হন সপার সভাপতি অখিলেশ যাদবের স্ত্রী ও মুলায়ম সিং যাদবের পুত্রবধূ ডিম্পল যাদব। কিন্তু এবার ‘সুগন্ধির শহর’ খ্যাত এ আসনে এতদিনের ‘শত্রু’ বহুজন সমাজ পার্টির (বসপা) সঙ্গে জোটের সুবাদে ইতিমধ্যে জয়ের সুবাস পেতে শুরু করেছেন তিনি। বসপার নেত্রী মায়াবতীর সঙ্গে জোর প্রচারণাও চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। শনিবার কনৌজে এক জনসভায় ডিম্পলের মাথায় হাত দিয়ে আশীর্বাদও করে দিয়েছেন মায়াবতী।

রাজ্যের রাজধানী লক্ষ্ণৌ থেকে ১৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত কনৌজ।

এখানকার সুগন্ধি-আতর বিশ্বখ্যাত। একে তাই ভারতের ‘সুগন্ধির শহর’ বলা হয়। রাজনীতির ক্ষেত্রেও খুবই গুরুত্বপূর্ণ শহরটি। লোকসভার নির্বাচনে প্রতিবারই হয় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। আসনটিতে মোট ভোটের ৩০ শতাংশই মুসলিম, দলিত ও অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের। এ আসনে গতবার বসপার প্রার্থী পেয়েছিল ১ লাখ ২৭ হাজার ভোট।

বসপার সঙ্গে সপার জোটের পর সংখ্যালঘু ভোটের পুরোটাই ডিম্পলের বাক্সে পড়বে বলে আশা করছেন অখিলেশ ও বসপার নেত্রী মায়াবতী। জোটের শক্তির ব্যাপারে সম্প্রতি সপার নেতা বলেছেন, ‘হ্যাঁ, বসপার সঙ্গে জোট করার পর আমাদের অবস্থান এখন আরও শক্তিশালী। এখন আমাদের পেছনে মুসলিম ও দলিত সম্প্রদায়ের সমর্থন আছে।’

তবে বিজেপির অবস্থানও একেবারে দুর্বল নয়। এ আসনে তারাও জয়ের দাবিদার। ‘কন্যাকুব্জা’ বলে তথাকথিত উচ্চবর্ণের ব্রাহ্মণদের বড় একটি অংশ এ কনৌজে বাস করে। কট্টোর হিন্দুত্ববাদী বিজেপির প্রতিই তাদের সমর্থন।

এ সম্প্রদায়ের এক জ্যেষ্ঠ নেতা সুব্রত পাঠককে প্রার্থী হিসেবে মাঠে নামিয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি। গতবার ডিম্পলের কাছেই হেরে গেছিলেন পাঠক। জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী বিজেপির আঞ্চলিক নেতা আনন্দ সিং বলেন, ‘গতবার হারলেও এবার আমরাই জিতব। কনৌজের সব শ্রেণীর মানুষই এবার মোদিকে ভোট দেবে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত