প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমতলীতে ৩০ লক্ষ টাকার অবৈধ পলিথিন জব্দ দু’জনের অর্থদন্ড

জয়নুল আবেদীন : বরগুনার আমতলী পৌর শহরের ছুরিকাটা তালুকদার বাড়ি থেকে রবিবার দক্ষিণাঞ্চলরে বৃহৎ অবৈধ পলিথিনের চালান জব্দ করেছে র‌্যাব-৮ সদস্যরা। জব্দকৃত পলিথিনের মূল্য প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা। এ ঘটনার সাথে জড়িত কামাল হাওলাদার ও শিপন তালুকদারকে ৬০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কমলেশ মজুমদার।

র‌্যাব-৮ সূত্রে জানা গেছে, আমতলী পৌর শহরের গোডাউন এলাকার সেকান্দার হাওলাদারের ছেলে মো. কামাল হাওলদার দক্ষিণাঞ্চলের অবৈধ পলিথিন চোরা কারবারিদের মধ্যে অন্যতম। সে দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে অবৈধভাবে পলিথিনের ব্যবসা করে আসছিল। রবিবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পটুয়াখালী র‌্যাব-৮’এর অপারেশন কমান্ডার সিনিয়র এএসপি সুয়েব আহম্মেদ খানের নেতৃত্বে র‌্যাব সদস্যরা আমতলী পৌর শহরের ছুরিকাটা কামালের ভাড়া গোডাউনে অভিযান চালায়। ওই গোডাউন থেকে দক্ষিণাঞ্চলের বৃহৎ অবৈধ পলিথিনের চালান ২’শ ৪২ বস্তায় ১৯ হাজার ৩’শ ৬০ কেজি পলিথিন জব্দ করে। যার মূল্য প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা। এ সময় ঘটনার অবৈধ পলিথিন ব্যবসায়ী চোরা কারবারি মো. কামাল হাওলাদার ও ঘর মালিক শিপন তালুকদারকে আটক করে র‌্যাব। পরে র‌্যাব সদস্যরা আমতলী ভ্রাম্যমান আদালতে জব্দকৃত অবৈধ পলিথিন ও কামাল হাওলাদার এবং শিপন তালুকদারকে সোপর্দ করেন। আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কমলেশ মজুমদার আসামী কামাল হাওলাদারকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে তিন মাসের কারাদন্ড ও শিপন তালুকদারকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে দুই সপ্তাহের কারাদন্ডের আদেশ দেন। এবং জব্দকৃত পলিথিন পুড়িয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন।

জব্দকৃত পলিথিন ওইদিন সন্ধ্যায় আমতলী পায়রা নদী সংলগ্ন পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকায় বালুর মাঠে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও র‌্যাব-৮ সদস্যদের উপস্থিতিতে পুড়িয়ে ফেলা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, দক্ষিণাঞ্চলে এত বড় পলিথিনের চালান আর কখনো ধরা পরেনি। অবৈধ পলিথিনের কারলে পরিবেশ দুষিত হচ্ছে। তারা আরো বলেন, দক্ষিণাঞ্চলে যারা এ অবৈধ পলিথিন চোরা কারবারির সাথে জড়িত তাদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবী জানান।

পটুয়াখালী র‌্যাব-৮ অপারেশন কমান্ডার সিনিয়র এএসপি সুয়েব আহম্মেদ খান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমতলী পৌর শহরের ছুরিকাটা নামক স্থানে একটি গোডাউনে অভিযান চালিয়ে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ১৯ হাজার ৩’শ ৬০ কেজি অবৈধ পলিথিন জব্দ এবং দুজনকে আটক করেছি। ওই জব্দকৃত পলিথিনের মূল্য প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা। পরে ঘটনার সাথে জড়িত দু’জন ও জব্দকৃত পলিথিন ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

আমতলী ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কমলেশ মজুমদার বলেন, সরকারের নিষিদ্ধ অবৈধ পলিথিন রাখা ও পরিবেশ সংরক্ষণ বিধি মোতাবেক ঘটনার সাথে জড়িত কামাল হাওলাদারকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে তিন মাসের কারাদন্ড ও শিপন তালুকদারকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে দুই সপ্তাহের কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, জব্দকৃত ওই ২’শ ৪২ বস্তা পলিথিন পুড়িয়ে ফেলা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত