প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অর্থনীতিবিদদের মতামত, খেলাপিঋণ আদায় নয়, কমাতে নানা কৌশল

রমজান আলী : যারা ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে শোধ করেননি, তাদের ‘ঋণ খেলাপি’ তকমা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সুযোগ করে দিয়েছে সরকার। এমনটাই মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা
খেলাপিদের প্রথমে মোট ঋণের ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্টে ৭ শতাংশ সুদে ১২ বছরে ওই টাকা পরিশোধের সুযোগ পাবেন বলে জানানো হয়। বর্তমানে ৭ শতাংশের পরিবর্তে এখন ফাইনালি ৯ শতাংশে করা হয়েছে। এই সুযোগ নিয়ে যারা ঋণ শোধ করতে না পারার ‘যৌক্তিক’ কারণ ব্যাখ্যা করতে পারবেন, তাদেরকে মোট ঋণের ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্টে ৯ শতাংশ সুদে ১২ বছরে ওই টাকা পরিশোধের সুযোগ দেওয়া হবে।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ৬ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংক ঋণ অবলোপন-সংক্রান্ত নতুন নীতিমালা প্রকাশ করে। ওই নীতিমালায় দুই লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ অর্থঋণ আদালতে মামলা না করেই অবলোপন করার সুযোগ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এর আগে এই অঙ্ক ছিল ৫০ হাজার টাকা। এছাড়া যেসব ঋণ নিকট ভবিষ্যতে আদায় হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই, সেসব ঋণ তিন বছর ধরে মন্দমানে খেলাপি অবস্থায় থাকলে সেই ঋণগুলো অবলোপন করার সুযোগ দেওয়া হয়।

খেলাপি ঋণ কমাতে গিয়ে এমন সিদ্ধান্তে একমত হতে পারেননি অর্থনীতিবিদরা। আবার নয় শতাংশ সরল সুদে খেলাপি ঋণ পরিশোধের যে সুযোগ সরকার দিয়েছে বিশেষজ্ঞরা অনেকে তার সমালোচনা করেছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ৩১ ডিসেম্বর শেষে ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯৩ হাজার ৯১১ কোটি টাকা, যা মোট বিতরণ করা ঋণের ১০ দশমিক ৩০ শতাংশ। এর বাইরে দীর্ঘদিন আদায় করতে না পারা যেসব ঋণ ব্যাংকগুলো অবলোপন করেছে, তার পরিমাণপ্রায় ৩৮ হাজার কোটি টাকা। খেলাপি ঋণের সঙ্গে অবলোপন করা এ মন্দ ঋণ যুক্ত করলে প্রকৃত খেলাপি ঋণ দাঁড়ায় ১ লাখ ৩২ হাজার কোটি টাকা। ২০১৭ সাল শেষে ব্যাংক খাতে খেলাপি ঋণ ছিল ৭৪ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা। এ হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে খেলাপি ঋণ বেড়েছে সাড়ে ১৯ হাজার কোটি টাকা।

এদিকে খেলাপি ঋণ কম দেখাতে ‘রাইট অফ’ নীতিমালা শিথিল করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংকগুলো এখন মাত্র তিন বছরের মন্দ মানের খেলাপি ঋণ ব্যালেন্স শিট থেকে বাদ দিতে পারবে। এতে খেলাপি ঋণ আদায় না হলেও তা কাগজ-কলমে কমবে। খেলাপি ঋণ আর এক টাকাও বাড়বে না অর্থমন্ত্রীর ঘোষণার পর প্রথম পদক্ষেপে ব্যাংকগুলোর ঋণ অবলোপন নীতিমালা শিথিল করা হয়। এখন ঋণ খেলাপিদের ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্টে টাকা পরিশোধের সুযোগ দেওয়া হল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্ণর ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, হুট হুট করে সিদ্ধান্ত নিয়ে খেলাাপি ঋণ আদায় করা সম্ভব নয়। সঠিকভাবে চিন্তা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এছাড়া খেলাপি ঋণ আদায় করার ব্যাপারে সরকারকে আরো কঠোর হতে হবে। তাছাড়া খেলাপি ঋণ আদায় করা সম্ভব নয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত