প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাঁকজমক ভাবে যাত্রা শুরু করলো ‘সিনেবাজ ফিল্মস’

বিনোদন প্রতিবেদক : দেশিয় চলচ্চিত্রের গুণী শিল্পীদের পাশে নিয়ে যাত্রা শুরু করলো নতুন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘সিনেবাজ ফিল্মস’। বাংলা চলচ্চিত্রে অ্যানালগ সিস্টেম পরিবর্তন হয়ে ডিজিটাল সিস্টেম চালু হয়েছে অনেক বছর হলো। দিন যতো বাড়ছে সিনেমার মান তত উন্নয়ন হচ্ছে বাংলাদেশে। দর্শকের হল মুখি করছে নতুন প্রজন্মের সব বাংলা সিনেমা। একটা ভালো সিনেমা তৈরির পেছনে প্রধান ভুমিকা রাখে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। আর তাই জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করলো প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘সিনেবাজ ফিল্মস’।

শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর এক পাঁচ তারকা হােটেলে হয়ে গেল এর সংবাদ সম্মেলন।  উপস্থিত ছিলেন এই কোম্পানীর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শাম ইসলাম, চেয়ারপার্সন জোৎস্না ইসলাম, জনপ্রিয় অভিনেতা ও এই কোম্পানীর ডিরেক্টর অফ কমিউনিকেশন স্বাধীন খসরু, ‘খোঁজ দ্য সার্চ’, ‘অগ্নি’, ‘বিজলী’সহ বাংলাদেশের বেশকিছু জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ও এই কোম্পানীর ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর ইফতেখার চৌধুরী এবং কনসালটেন্ট হিসেবে থাকছেনরমিম রায়হান।

এছাড়া অনুষ্ঠানে প্রধান ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য ও চিত্রনায়ক আকবর হােসেন পাঠান (ফারুক),চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, এ ছাড়া অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র অভিনেতা ড্যানি সিডাক, চিত্রনায়ক বাপ্পি, রোশান, চিত্রনায়িকা ববি হক, জলি, রাহা তানহা খান, শিমুল খান, চলচ্চিত্র নির্মাতা দেবাশীষ বিশ্বাস, বুলবুল বিশ্বাস, চিত্র নাট্যকার রুম্মান রশিদ খান সহ আরও অনেকেই।অনুষ্ঠানে শুরুতে প্রিয়মুখ রুম্মান রশীদ খানের প্রানবন্ত সঞ্চালনায় সকলকেই মুখরিত করে রাখেন তিনি।তারই উপস্থাপনায় পুরো অনুষ্ঠান চলে।এসময় চিত্রনায়ক ফারুক ও ইলিয়াস কাঞ্চন ফিতা কেটে ‘সিনেবাজ ফিল্মস’ উদ্বোধন করেন।

এসময় চিত্রনায়ক ফারুক বলেন, আপনারা ছবি বানান আমি সব সময় আপনাদের সঙ্গে আছি। কারণ সিনেমা হচ্ছে পৃথিবীর অন্যতম শক্তিশালী মাধ্যম। সিনেমা কিন্তু শুধু এফডিসির না। পৃথিবীতে যারা অভিনয় করেন তারা সবাই এক মায়ের সন্তান। সিনেমা আলাদা একটা পৃথিবী।নায়ক ফারুক আরও বলেন, আমি এখন এমপি হয়েছি। কিন্তু এমপি পরিচয় আমার ভালো লাগে না। আমি আপনাদের কাছে মিয়া ভাই ও অভিনেতা ফারুক হিসেবেই থাকতে চাই। সিনেমার শক্তি অনেক।‘সিনোবাজ ফিল্মস’ এর (সিইও) শাম ইসলাম বলেন, বিদেশে থাকলেও আমি বাংলা চলচ্চিত্রকে ভালােবাসি। আমি চাই বাংলাচলচ্চিত্র আবারাে সেই সুনাম বয়ে আনুক। এখানের শিল্পী, কলাকুশলীরা অনেক মেধাবী। তাদের নিযেগুনগতমানের প্রোডাকশন।শুরু করতে চাই। বিশ্বের মানুষের কাছেও তা পৌছাতে চাই।

স্বাধীন খসরু বলেন, ইউকে ও বাংলাদেশ বেইজ কোম্পানী এটি। অতীতে অনেক ভালাে প্রোডাকশন হাউজ ছিল এদেশে! যেছবিগুলাে বাংলাদেশকে রিপ্রেজেন্ট করেছে। বর্তমানে ভালাে প্রোডাকশন হাউজ দেশে নেই বললেই চলে। বিশ্বায়নের যুগে ‘সিনেবাজ ফিল্মস’ সেই সাহসী উদ্যোগ নিয়েছে। এই প্রতিষ্ঠান থেকে আন্তর্জাতিক মানের ছবি প্রযােজনার পাশাপাশি মুক্তিও দেয়া হবে।

জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ইফতেখার চৌধুরী বলেন, মাল্টিনাশনাল কোম্পানী এটি। বাংলা চলচ্চিত্র অস্কার বা কানে| পুরস্কার জিতে আনুক এটা আমাদের সকলের চাওয়া। তবে সেজন্য একটি ছবির সেই কোয়ালিটি, গল্প, মেকিং থাকতে হবে।বর্তমানে ভালাে মানের সিনেমা কম তৈরি হচ্ছে। যে সিনেমাটা শুধু দেশে না বাইরেও মুক্তি দিতে পারবো আমরা সেই ধরনের ছবি উপহার দিতে চাই।ভালাে কিছু কনটেন্ট তৈরী করতে চাই সিনেবাজ থেকে।

নতুন এ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে ‘পিকনিক’, ‘বিফোর ডন’সহ বেশকিছু নতুন প্রজেক্ট শিগগিরই শুরু করব আমরা। এছাড়া নারী দিবসসহ বছরজুড়ে নানা স্বাদের ছবি দর্শকদের উপহার দেবার পরিকল্পনা আছে।অনুষ্ঠান শেষে আগত সকল অতিথিদের জন্য রাতের খাবারের ব্যবস্থা রাখা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত