প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জায়ানের কুলখানিতে বাবা প্রিন্সের জন্য দোয়া কামনা

মো. তৌহিদ এলাহী : জায়ান চৌধুরীর কুলখানিতে শ্রীলংকায় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। একই সঙ্গে সবার দোয়া কামনা করা হয়েছে হামলায় গুরুতর আহত জায়ানের বাবা মশিউল হক চৌধুরী প্রিন্সের সুস্থতার জন্যও।

শনিবার বাদ আসর রাজধানীর বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি মাঠে জায়ানের কুলখানি উপলক্ষে বিশেষ দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের খতিব মুফতি মাওলানা মহিউদ্দিন কাশেমী দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন। এ সময় জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও অগ্রগতির পাশাপাশি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শহীদদের রুহের মাগফিরাতও কামনা করা হয়।

দোয়া মাহফিলে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন জায়ানের নানা আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি। নাতির মৃত্যুতে যারা সহানুভূতি ও সান্ত্বনা জানিয়েছেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে শেখ সেলিম বলেন, এমন মর্মান্তিক নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানানোর ভাষা কারও নেই। কোনো ধর্মে বলা হয়নি যে হত্যা করে ধর্মমত প্রতিষ্ঠা করা যায়। ইসলাম ধর্মেও বলা হয়েছে, হত্যা করা মহাপাপ। যারা এভাবে নারী ও শিশুকে হত্যা করে ইসলামকে কলঙ্কিত করেছে- তারা মানুষ নয়।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে সাড়ে আট বছর বয়সী নাতির স্মৃতিচারণ করে আওয়ামী লীগের এই বর্ষীয়ান নেতা বলেন, জায়ান অত্যন্ত মেধাবী ও ধর্মপরায়ণ ছিল। বেঁচে থাকলে হয়তো সে দেশের নেতৃত্ব দিতে পারত, মানুষের কল্যাণ করতে পারত। আর যেন কোনো পরিবারকে এমন নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের শিকার হতে না হয়, আর যেন কোনো বাবা-মায়ের কোল এভাবে খালি না হয়, ধর্মের নামে কোনো হানাহানি-সংঘাত না হয় এবং বাংলাদেশসহ সারাবিশ্ব থেকে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ চিরতরে নির্মূল হয়- সেটাই সবার কাম্য।

জায়ানের বাবার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে বলতে গিয়ে শেখ সেলিম জানান, প্রিন্সকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়েছে। জায়ানের মা শেখ আমেনা সুলতানা সোনিয়া অনেক কষ্ট বুকে চেপে স্বামীর শয্যাপাশে অবস্থান করছেন। এ জন্য দাফনের দিনটিতেও ছেলে জায়ানের পাশে থাকতে পারেননি সোনিয়া।

দোয়া মাহফিলে জায়ানের দাদা এম এইচ চৌধুরী পারুল, মামা শেখ ফজলে শামস পরশ, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, এফবিসিসিআইর সিনিয়র সহসভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য শেখ ফজলে নাঈম এবং ছোট চাচা ডিউক চৌধুরীসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত