প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সীমান্তে হত্যা বন্ধে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে সমন্বিত উদ্যোগ প্রয়োজন, বললেন আসক কর্মকর্তা

মঈন মোশাররফ : মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) হিসাবে চলতি বছরের প্রথম চার মাসেই বিভিন্ন এলাকায় বিএসএফের গুলিতে ১১ বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। অথচ গতবছর সংখ্যাটি ছিলো ৮ জন।

এ প্রসঙ্গে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক শিপা হাফিজা শনিবার ডয়চে ভেলেকে বলেন, সীমান্তে হত্যা বন্ধে দু’দেশের সমন্বিত উদ্যোগের পরামর্শ প্রয়োজন। সীমান্তে মানুষ যখন হত্যাকাণ্ডের শিকার হচ্ছে, তখন উদ্যোগতো নিতেই হবে। এটা একটি বড় উদ্বেগের বিষয়।

তিনি আরো বলেন, দু’পক্ষীয় আলোচনা হওয়া উচিত। কোনো কারণে যদি হত্যাকাণ্ড হয়, সেই সমস্যাগুলো নিবারণ করার উদ্যোগ নিতে হবে দুই পক্ষকেই। এটা কারোর একার ব্যাপার নয়। আমাদের মানুষ মারা যাচ্ছে, ওরা মারছে, ইন-বিটুইন নিশ্চয় কোনো গ্যাপ আছে, ইনফরেমশন গ্যাপ আছে- এই গ্যাপটা জানা উচিত এবং নিরীহ মানুষের মৃত্যুটা বন্ধ করা উচিত।

তিনি জানান, গত চার মাসে সীমান্তে যেভাবে হত্যাকাণ্ড বেড়েছে, আমরা দেখেছি, গুলিতে হত্যা, অন্য ধরনের মৃত্যু, শারীরিক নির্যাতন, অপহরণ- এসব কিছু মিলিয়ে প্রায় ৪৩ জন নিখোঁজ হয়েছেন। এবার এসে আমরা চার মাসেই দেখছি, ২২ জন অলরেডি এই কাতারে আছে। এটা বেশ অ্যালার্মিং বিষয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত