প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিরলে ভুট্টা ক্ষেত থেকে এক আদিবাসি গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, আটক-১

এম এ কুদ্দুস, দিনাজপুর প্রতিনিধি :  দিনাজপুরের বিরলে ভুট্টা ক্ষেত থেকে এক আদিবাসি গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে উপজেলার রাণীপুকুর ইউপি’র মহেষ শিবপুর গ্রামের বিস্তা হাসদার স্ত্রী ২ সন্তানের জননী সুমিত্রা মার্ডী (২৮)। শুক্রবার সকালে বাড়ীর পাশে ভুট্রা ক্ষেতে ঐ গৃহবধূর লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ এটিএম গোলাম রসূলের নেতৃত্বে পুলিশ ঐ গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম, আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

পুলিশ এবং স্থানীয়রা প্রাথমিক ভাবে ধারণা করেছেন, ঐ গৃহবধূকে গণধর্ষণ করে নির্যাতন ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত গৃহবধূর মা একই জেলার কাহারোল উপজেলার পানিসাইল গ্রামের তালমাই মার্ডী বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে বিরল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত সুমিত্রা মার্ডীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বিকাল ৪ টার দিকে সুমিত্রা তাঁর কন্যা শ্যামলী (৪) দেবর বগধার পুত্র সুশান্ত (৪) এবং প্রতিবেশি মোতালেবের কন্যা হাসি (৯) কে সাথে নিয়ে বাড়ীর পাশে জমিনে খাওয়ার জন্য শাক তুলতে যায়। শাক তুলার এক পর্যায় সুমিত্রা শিশুদের রেখে ঐ স্থানের সাথে কোলা বাগানে ঢুকে। কিন্তু দীর্ঘক্ষণ পরেও সে ফিরে না আসায় শিশুরা তাকে ডাকতে থাকে। অবশেষে শিশুরা সুমিত্রার কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে বাড়ীতে এসে ঘটনার বিষয় জানায়।

নিহত গৃহবধূ সুমিত্রার শ্বশুর সেবা হাসদা জানান, বৌমা নিখোঁজ হবার পর থেকেই আমরা তাকে বিভিন্ন জায়গায় খুঁজেছি। সকালে তাকে শাক তুলতে যাওয়া জমিনের পাশে ভুট্টা ক্ষেতে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়দের মাধ্যমে পুলিশকে সংবাদ দেয়া হয়। একই কথা জানান, সুমিত্রার স্বামী বিস্তা হাসদা। তবে তিনি জানান, ঘটনার সময় তিনি বাড়ীতে ছিলেন না। পাশের ৬ নং ভান্ডারা ইউনিয়নের ভারাডাঙ্গী এলাকায় এক অদিবাসি বিয়ে বাড়ীতে বাদ্যযন্ত্র বাজাতে গিয়েছিলেন। তিনি মুঠোফোনে সংবাদ পেয়ে বাড়ীতে আসেন এবং তিনিও সারারাত ধরে তার স্ত্রীকে খোঁজাখুঁজি করেন। মৃতার পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, লাশের পরনের কাপর এলোমেলো এবং শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখমের চিহৃ ছিল।

বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ এটিএম গোলাম রসূল জানান, আমরা লাশের সুরতহাল করে ময়না তদন্তের জন্য লাশ দিনাজপুর এম, আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের কাজ সম্পন্ন হলে সে ধর্ষনের শিকার হয়েছে কি-না এবং কিভাবে হত্যা করা হয়েছে তা পরিস্কার জানাযাবে। তিনি জানান, এ ঘটনায় সুমিত্রার মা তালমাই মার্ডী বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। আমরা ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে মৃত গৃহবধু সুমিত্রার প্রতিবেশি চুনকু হেমরমের পুত্র শনিরাম হেমরম (২৫) কে আটক করেছি। ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এদিকে ঘটনার পর পরেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন, দিনাজপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজ জামান আস্রাফ ও এএসপি (সদর সার্কেল) সুশান্ত সরকার। এছাড়া জেলা পুলিশের পিবিআই ও ডিবি’র পৃথক পৃথক দুটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত