প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গার্মেন্ট সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় মনিটরিং অনুপস্থিত, বললেন ড.গোলাম মোয়াজ্জেম

মঈন মোশাররফ : অ্যাকর্ড আর অ্যলায়েন্সের বাইরে থাকা রপ্তানিমুখী ৭৪৫টি কারখানার সংস্কার কার্যক্রমের দায়িত্ব নেয় সরকার। গত পাচ বছরে এ সব কারখানা মাত্র ৩৬ ভাগ ত্রুটি সংশোধন করেছে। যা হতাশাজনক হিসেবে দেখছেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ। ডয়চে ভেলে

এ প্রসঙ্গে সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ (সিপিডি) গবেষক ড. গোলাম মোয়াজ্জেম বুধবার ডয়চে ভেলেকে বলেন, পোশাক কারখানাগুলো পরিদর্শন করে সমাধানের ক্ষেত্রে যেভাবে মনিটরিং করা উচিত ছিলো, সেগুলো সেভাবে মানা হয়নি। ফলশ্রæতিতে গত এক বছরে মাত্র ১০ শতাংশ অগ্রগতি হয়েছে। অথচ জানুয়ারির ভেতরে সমস্ত কাজ শেষ হওয়ার কথা।

২১৯টি কারখানা সংস্কার উদ্যোগে সাড়া না দেয়ায় তাদের ইউটিলাইজেশন ডিক্লারেশন বা ইউডি সুবিধা যাতে বন্ধ করে দেয়া হয়। এর জন্য মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ- কে বলেছিলো সরকারের সংস্কার সমন্বয় কেন্দ্র বা আরসিসি। কিন্তু বিজিএমইএ থেকে তাদের জন্য আরো সময় চাওয়া হয়েছে। এতে হতাশা প্রকাশ করে তিনি আরো বলেন, (সংস্কার কাজে) আগের বছরগুলোতে যতটা উদ্যম দেখা গেছে সেখানে এক ধরনের শ্লথ গতি এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে উলটো যাত্রার কিছু ইঙ্গিত রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত