প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলায় পর্যটন শিল্পে ধ্বসের আশঙ্কা

জাবের হোসেন : শ্রীলঙ্কার অর্থনীতির বড় অংশই পর্যটন শিল্পনির্ভর। কিন্তু দেশটিতে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে এই শিল্পের ওপর। ফলে দেশটির পর্যটনশিল্প বড় ধরনের বিপর্যয়ের মুখে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা। দীর্ঘদিন ধরে চলা গৃহযুদ্ধ অবসানের পর গত কয়েক বছরে শ্রীলঙ্কায় পর্যটনশিল্প চাঙ্গা হয়ে উঠছিল। উল্লেখ ‘গ্রীষ্মমন্ডলীয় স্বর্গ’ হিসেবে পরিচিত দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপ দেশটিতে বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে পর্যটকরা আসে ডিসেম্বর থেকে মার্চের মধ্যে। ডিবিসি

দেশটির পর্যটন উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী গত বছর ভ্রমণ করেন ২৩ লাখ পর্যটক। গত বছর প্রতিবেশী ভারত থেকেই আসে সোয়া চার লাখ পর্যটক। ধারণা করা হচ্ছিল চলতি বছর এ সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়াবে। কেবল ভারতই নয়, চীন ও ব্রিটেন থেকেও গত বছর পর্যটক এসেছিল পাঁচ লাখের বেশি। কিন্তু গত রোবিবার সিরিজ বোমা হামলার পর পরিস্থিতি কোন দিকে গড়াবে তা নিয়ে চিন্তিত পর্যটন ব্যবসার সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

জেটইউং হোটেল চেয়ারম্যান শিরোমাল কোরেয় বলেন, যারা বুকিং দিয়েছিল অনেকে আমাদের মেইল জানতে চাচ্ছে এখানে আসার নিরাপত্তা কতটুকু। অনেকে কিছুই জিজ্ঞেস করছেনা তাদের বুকিং বাতিল করে দিচ্ছে। এ শ্রীলঙ্কা পর্যটন উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান খিসু গোমেজ বলেন, এ ধরনের ঘটনার পর সাময়িকভাবে বিনিয়োগে প্রভাব পড়বে এটাই স্বাভাবিক। তবে আমরা আমাদের পর্যটন শিল্পকে আবারও পুনর্গঠনের চেষ্টা করব। এখানে ভ্রমনকারীদের আস্থা অর্জন ও তাদের নিরাপত্তা দিতে সব ধরনের চেষ্টাই থাকবে আমাদের।

শ্রীলঙ্কার তৃতীয় সর্বোচ্চ বৈদেশিক মুদ্রা আসে পর্যটন খাত থেকে। ২০১৮ সালে এ খাত থেকে আয় ছিল প্রায় ৪৪০ কোটি ডলার, যা জিডিপির ৪ দশমিক ৯ শতাংশ।  পর্যটকদের নিরাপত্তার ব্যাপারে সব রকম আশ্বাস দিয়েছেন দেশটির পর্যটনমন্ত্রী জন অমরাতুঙ্গা। তারপরও আতঙ্ক কাটেনি। কেননা, ফের হামলার আশঙ্কায় ভ্রমণ সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, চীন ও অষ্ট্রেলিয়া।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত