প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানহানির ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি ভুয়া সাংবাদিক দম্পতিসহ গ্রেফতার ৫

মাসুদ আলম : রাজধানীর উত্তরা পূর্ব থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে ভুয়া সাংবাদিক দম্পতিসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১।

মঙ্গলবার বিকেলে উত্তরা ৬ নম্বর সেক্টরের নস্ট্রাম ডায়াগনস্টি সেন্টারের সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এরা হলেন- রাসেল হাওলাদার ওরফে রাসেল হাসান ওরফে হাসান, তার স্ত্রী সালমা আক্তার, রাসেলের শ্যালিকা আছমা আক্তার, মানিক হোসেন ও মোখলেছুর রহমান জনি। তাদের কাছ থেকে ৪ টি মোবাইল ফোন, টাকা, একটি মোটরসাইকেল ও বিভিন্ন পত্রিকার অসংখ্য পেপার ক্লিপিং উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-১ এর সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) মো.কামরুজ্জামান বলেন, গ্রেফতারকৃতরা সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজ চক্রের সদস্য। রাসেল চক্রের মূলহোতা। রাসেল জিজ্ঞাসাবাদে জানায় তার জন্মস্থান বরিশালে এবং সে ১৯ বছর ধরে ঢাকায় বাস করছে। রাসেলের নির্দেশেই চক্রের অন্য সদস্যরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও স্বনামধন্য ব্যক্তিদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করে থাকে। পড়াশোনায় সে উচ্চ মাধ্যমিকের গন্ডি পার হতে না পারলেও নিজেকে একজন গ্রাজুয়েট হিসেবে পরিচয় দিতো। তার গ্রামের বাড়ি ও ঢাকাতে একাধিক স্ত্রী আছে। ঢাকায় তার বর্তমান স্ত্রী সালমা আক্তার ও শ্যালিকা আছমা আক্তার তার বিভিন্ন অপারাধকর্মে সহযোগীতা করে থাকে। রাসেল প্রথমে গার্মেন্টসে চাকুরী করতো। এরপর সে উত্তরা বাণী, স্বাধীন সংবাদ, নতুন দিক, উত্তরা টাইমস, শ্যামল বাংলা ইত্যাদি বিভিন্ন স্থানীয় সংবাদপত্রে সংবাদকর্মী হিসেবে কাজ করতো। বর্তমানে সে সরেজমিন নামক একটি স্থানীয় দৈনিক পত্রিকায় কর্মরত। তার স্ত্রী ও শ্যালিকাকে সে টার্গেটকৃত ব্যক্তিদের কাছে পাঠিয়ে এবং মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করে অন্যথায় ইভটিজিং ও নারী নির্যাতন মামলার করার ভয় দেখাতো।

তিনি আরো বলেন, তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিনা অনুমতিতে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন ছাপিয়ে ওই প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে জোড়পূর্বক টাকা আদায় করতো। তাদের কাঙ্খিত টাকা না দিলে রাসেল নিজেকে বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক পরিচয় দিয়ে সংবাদপত্রে কুরুচিপূর্ণ ও মানহানিকর সংবাদ প্রকাশের ভয় দেখিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা আদায় করতো। রাসেলের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। মানিক হোসেন ও মোখলেছার রহমান চক্রের সক্রিয় সদস্য। তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে জোড়পূর্বক টাকা আদায়ের কাজ করে থাকতো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত