প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ধর্মীয় উগ্র বয়ানের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান!

মাসুদ রানা

আমরা নিজেদেরকে প্রবোধ দেয়ার জন্য যতোই বলি না কেন, ‘সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই’, বাস্তবে অবশ্যই তাদের ধর্ম আছে এবং তারা তাদের বিশ্বাসিত ধর্মের নামেই সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য অর্জনের জন্য সন্ত্রাসী তৎপরতা চালাচ্ছে। বিশ্বের মানুষের জীবন এই ধর্মবাদীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। বিশ্বের মানুষ আর এসব নিতে পারছে না। মানুষ যদি ‘রিটালিয়েইট’ বা প্রত্যাঘাত করতে শুরু করে, এর পরিণতি হবে ভয়াবহ। দিন নেই, রাত নেই, যত্রতত্র ধর্মবাদী উগ্র-বয়ান ধর্মবিশ্বাসী সম্প্রদায়সমূহের মধ্যে ইতোমধ্যে যে উগ্রতার জমিন তৈরি করেছে, সেখান থেকেই ধর্মীয় সন্ত্রাসবাদীদের জন্ম হচ্ছে। দিন-রাত উচ্চারিত ও পুনঃপুন প্রচারিত এসব ধর্মীয় উগ্র বয়ানের বিষয় হচ্ছে নারী, বিধর্মী, অবিশ্বাসী। দুর্ভাগ্যবশত ধর্ম বিশ্বাসীরা এসব বয়ানের প্রতিবাদ করছেন না, বরং হাজারে হাজারে হাজির হয়চ্ছেন ‘অশেষ সওয়াব হাসিল’ করতে। কিন্তু যখনই কোনো সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটে ধর্মের নামে, ধর্মবিশ্বাসীরা বলেন, ‘আমাদের ধর্ম তা করতে বলে না, সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই।’ আপনাদের ধর্ম যদি সন্ত্রাসের কথা না বলে, আপনারা কেন প্রতিবাদ করেন না, যখন আপনাদের ধর্মালয়ে ও ধর্মীয় মাহফিলে হিংসা ও বিদ্বেষ সৃষ্টিকারী উগ্র বয়ান পেশ করা হয়? তখন তো আপনারা বিশেষ ভাষায় জয়ধ্বনি দিয়ে উগ্র বয়ানকারীর জোশ বাড়িয়ে দেন। দেন না? আমি মনে করি, ধর্মবিশ্বাসীরা যদি ধর্মীয় সন্ত্রাসবাদ দেখতে না চান, তাদের উচিত হবে এক্ষুণি সক্রিয়ভাবে ধর্মীয় উগ্র বয়ান প্রত্যাখ্যান করা। তারা যদি তা করতে ব্যর্থ হন, নিষ্ক্রিয়তাজনিত অনৈচ্ছিক পরোক্ষ সমর্থনদান হেতু তাদেরকেও এর ভয়াবহ পরিণতি ভোগ করতে হবে। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত