প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজীবের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার রুল শুনানি ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত মুলতবি

এস এম নূর মোহাম্মদ : সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীবের পরিবারকে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে জারি করা রুলের পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ৩০ এপ্রিল দিন ঠিক করেছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার শুনানি শেষে বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন।

মঙ্গলবার সড়কে শৃংখলা আনার জন্য সাবেক নৌমন্ত্রী শাহজাহান খানের নেতৃত্বে সরকারের গঠিত কমিটির করা ১১১ দফা সুপারিশের খসড়া কপি আদালতে দাখিল করে বিআরটিএ (রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি)। এরমধ্যে আশু, স্বল্প মেয়াদী ও দীর্ঘ মেয়াদী সুপারিশ রয়েছে।

শুনানিতে রিটকারি আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, রাজিবে মৃত্যুর জন্য স্বজন পরিবহন কোনভাবেই দায় এড়াতে পারেনা। তদন্ত প্রতিবেদনে সেটি উল্লেখ করা হয়েছে। এ পর্যায়ে স্বজন পরিবহনের আইনজীবী বলেন, স্বজন পরিবহনের ৪০টি গাড়ীর ১৩ জন মালিক আছে। আমার দোষ শুধু আমি স্বজন পরিবহন, এর বাইরে আমার আর কিছু নেই। এখানে গাড়ীর মালিক হচ্ছে রাজু। এ ঘটনার জন্য দায়ভার তার। তিনি বলেন, আমার দায়িত্ব শুধু ঠিকমত গাড়ী চলছে কিনা সেটি দেখা।

এসময় আদালত বলেন, সড়ক দূর্ঘটনা কি শৃংখলার মধ্যে পড়েনা? রোড পারমিট দেয়ার অর্থ কি? যেহেতু রোডপারমিট দেয়া হয়েছে, তাই রাস্তার দায় দায়িত্বও নিতে হবে। এরপর আদালত শুনানি মুলতবি করেন।

গত বছরের ৩ এপ্রিল রাজধানীর বাংলামোটর থেকে ফার্মগেটমুখী একটি দ্বিতল বিআরটিসি বাস সার্ক ফোয়ারার কাছে পান্থকুঞ্জের পাশে সিগন্যালে থেমে ছিল। তখন একই দিক থেকে আসা স্বজন পরিবহনের একটি বাস দ্রুতগতিতে এসে দোতলা বাসের পাশের ফাঁক দিয়ে ঢুকে সামনে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় যাত্রী রাজীব হাসানের ডান হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং সেটি দ্বিতল বাসের সঙ্গে ঝুলছিল। ১৩ দিন চিকিৎসার পর গত বছরের ১৬ এপ্রিল তিনি মারা যান।

পরে ওই ঘটনা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিট করেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। হাইকোর্ট রাজীবের পরিবারকে কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে রুল জারি করেন। তবে বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহন আপিল করলে দায় নিরুপন করতে কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। ওই কমিটি তাদের প্রতিবেদন আদালতে জমা দেওয়ার পর সম্প্রতি রুল শুনানি শুরু হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত