প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শ্রীলংকার অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন জাতি এবং ধর্মীয় গোষ্ঠি হামলার সঙ্গে জড়িত না থাকলেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা ব্যর্থ, বললেন ড. ইমতিয়াজ আহমেদ

ফাতেমা ইসলাম : শ্রীলংকায় রোববারের ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পর দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। এ হামলার জন্য সরকার একটি স্থানীয় ইসলামি জঙ্গিগোষ্ঠি ন্যাশনাল তৌহিদী জামাতকে দায়ী করছে। তবে সরকার বলছে, এ ঘটনার পেছনে অবশ্যই কোন আন্তর্জাতিক গোষ্ঠির সমর্থন ছিলো। এই সন্ত্রাসী হামলায় নিহতের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ৩১০ জন। আহত হয়েছে আরো কয়েকশো মানুষ। একদশক আগে এক রক্তাক্ত গৃহযুদ্ধের অবসান হলেও শ্রীলংকায় এখনও বিভিন্ন জাতি এবং ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিবিসি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, আমি মনে করি কোন সমাধানে আসা ঠিক হবে না- কারা করেছে, বা কারা জড়িত। যেটা দেখা দরকার সেটা হলো শ্রীলংকার মুসলমানদের সাথে ওখানকার খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের সাথে এমন কোন মারামারি হয়নি যা এই পর্যায়ের একটা ঘটনা ঘটবে। মুসলমানদের সাথে বৌদ্ধদের আগে বিবাদ হয়েছে, বিভিন্ন লোকদের সঙ্গে বিভিন্ন লোকদের ঝগড়া হয়েছে, এই জিনিসটা যতখানি সহজে বোঝা যায় সেই অর্থে এইখানে যদি আক্রমণ করতেই হতো মুসলমানদের, স্বভাবিক ভাবে মুসলিমদের ওপর আক্রমণটা হতো।

তিনি আরো বলেন, এই হামলার মধ্যে শ্রীলংকার অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন জাতি এবং ধর্মীয় গোষ্ঠির মধ্যে যে দ্বন্দ্ব সেটার কোন সরাসরি সম্পর্ক না থাকলেও প্রশ্ন থেকে যাবে। তাই এই ব্যাপারটা নিয়ে আরো তদন্ত করা দরকার। তবে এখানে যে সিকিউরিটি ছিলো তা বড় ধরনের ব্যর্থ হয়েছে। বোঝাই যাচ্ছে এখানে সামরিক বাহিনী বা যারা এই সিকিউরিটির দায়িত্বে ছিলো তার একটা বড় পরিবর্তন আগামীতে শ্রীলংকার মধ্যে দেখবো এতে কোন সন্দেহ নেই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত