প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিজনেস প্রোসেসিং আউটসোসিং নিয়ে ঠাট্টা করার দিন শেষ

ইউসুফ আলী বাচ্চু : টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বলেছেন, বাংলাদেশের বিজনেস প্রোসেসিং আউটসোসিং (বিপিও) নিয়ে হাসাহাসির দিন শেষ হয়ে গেছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ১০ বছর অক্রিম করেছে। সেই ঠাট্টা মসকরা করার দিন আর নেই।

শনিবার দুপুরে হোটেল সোনাগাঁওয়ে ‘বিজনেস প্রোসেসিং আউটসোর্সিং (বিপিও) চতুর্থ সামিট’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের জন্য বিজনেস প্রোসেসিং আউটসোসির্ং , এই সামিট, তার ইনকাম , কর্মসংস্থান এটা এখন আলোচনার বিষয়।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণের ৬৫ ভাগে বয়স ৩৫ বছর নিচে হওয়ায় ফলে দেশে তারুন্যের কর্মস্থান বড় চ্যলেঞ্জ। খুব বাস্তবতা হচ্ছে যেটি সেটি হল বাংলাদেশ প্রথম শিল্প যুগের যে শিক্ষা সেই শিক্ষাটাকেই আস্তে আস্তে আজকের পর্যায় নিয়ে আসছে। আমাদের ভুলে যাওয়া উচিত হবে না, ১৯৭২ সালে বাংলাদেশের শিক্ষার হার ছিল মাত্র ২৩ ভাগ মাথা পিছু আয় ছিল ১২০ ডলার, মোট বাজেট ছিল ৭৮৬ কোটি টাকা। সেই থেকে একটি দীর্ঘ বিরতির পর আজকে প্রধানমন্ত্রীর হাতধরে আমাদের মাথাপিছু আয় দাড়িয়েছে ১৯০৯ ডলার। আমাদের জণগোষ্ঠীকে ৭২ ভাগে উন্নিত করতে পেরেছি।

গত দশ বছর শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার প্রযুক্তি খাতকে গুছিয়ে এনেছে। এখন দ্রুত বেগে অগ্রগতির পালা। শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের সুফল হিসেবে বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রুত বিকাশ লাভ করেছে। অনুন্নত দেশের তালিকা থেকে আজ আমরা উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় ঠাঁই পেয়েছি। উন্নত দেশ হতে হলে প্রযুক্তি খাত থেকে আয় বাড়াতে হবে। এক্ষেত্রে বিপিও গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে বলে আমি আশাবাদী।

মোস্তাফা জব্বার আরও বলেন, বিশ্বব্যাপী বিপিও খাতের বাজার প্রায় ৬০০ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশের বিপিও ব্যবসার বাজার গত ১০ বছরে ইতিমধ্যেই ৩০০ মিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। সেই সম্ভাবনাকে সকলের সামনে তুলে ধরা এবং তরুণ প্রজন্মের কাছে এই বার্তা পৌঁছে দেওয়ার এখনই সময়। এই খাতকে যথাযথভাবে কাজে লাগাতে হলে এটি আমাদের দেশের উন্নয়নের গতিকে আরও ত্বরান্বিত করবে এ কথা নিশ্চিতভাবে বলা যায়। ২০০৮ সালে যেখানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ২৪ লাখ, বর্তমানে সেই সংখ্যা ৯ কোটি ছাড়িয়ে গেছে। কেবল গ্রাহকের সংখ্যা বাড়ানোই নয়, ব্যবহারকারীদের জন্যে ইন্টারনেট যেন নিরাপদ হয় সেজন্যেও আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ২০০৫ সালে যে ব্যান্ডউয়িথের দাম ছিলো ৭৫ হাজার টাকা, সরকার এখন তা ৪০০ টাকায় নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। মোবাইল ফোন ইন্টারনেটে আমরা ইতিমধ্যেই ফোরজি সেবা চালু করেছি; অচিরেই একে ফাইভজি-তে উন্নিত করার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে বলে জানান মোস্তাফা জব্বার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত