প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শ্রীলঙ্কায় আটটি সিরিজ বোমা হামলায় নিহত ২০৭, গ্রেপ্তার সাত, বিশ্বনেতাদের শোক (ভিডিও)

লিহান লিমা, আব্দুর রাজ্জাক : শ্রীলঙ্কায় ছয়টি বোমা বিস্ফোরণের পর রাজধানী কলম্বোর কাছে দেহিওয়ালায় ও অরুগোদাওয়াতায় কিছুক্ষণ আগে আরো দু’টি বোমা বিস্ফোরিত হয়েছে৷ এ পর্যন্ত অন্তত ২০৭ জন নিহত হবার খবর নিশ্চিত করেছে বার্তা সংস্থা ডিপিএ৷। কেউ এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। এদিকে এই হামলায় জড়িত থাকার সন্দেহে ৭ জনকে আটক করার কথা জানিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয় জরুরি অবস্থা জারির কথা্ও ঘোষণা করে।  গির্জায় ইস্টারের প্রার্থনা চলাকালীন এই হামলা ঘটে। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ৩৫জন বিদেশি নাগরিকও রয়েছেন।   বিবিসি, হিন্দুস্তান টাইমস, ডয়েচে ভেলে

পুলিশ জানায়, কোচচিকাদে, নেগোম্বো ও বাতিকালাওয়ের গির্জা ও ৫ তারকা হোটেল শাংরি-লা, সিনামন গ্রান্ড ও কিংসবারিতে অন্তত ৬টি বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেছে। বিস্ফোরণে আহতদের দেশটির রাজধানী কলম্বোর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। স্থানীয় সময় সকাল ৮.৪৫ টায় যখন মানুষ গির্জায় জড়ো হচ্ছিলেন তখনই বিস্ফোরণের খবর পাওয়া যায়। পুলিশের মুখপাত্র রুওয়ান গুনাসেকারা বলেন, কলম্বোর সেন্ট অ্যান্থনি চার্চ প্রথমে বোমা হামলার শিকার হয় যেখানে ১৬০ জন আহত হয়েছে। পরে রাজধানীর পাশে সেন্ট সেবাস্তিয়ানেও বিস্ফোরণ হয়। কিন্তু শুধু নেগোম্বোতেই ৫২ জনের নিহত হওয়ার কথা জানিয়েছে একজন পুলিশ কর্মকর্তা। হাসপাতাল সূত্র জানায়, বাতিকালাওয়ের আরো ২৭ জন নিহত হয়েছে। রাজধানীর বিলাসবহুল হোটেল শাংরি-লার প্রবেশদ্বার নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও উদ্ধারকর্মীদের দ্বারা ব্লক করে রাখা হয়েছে। হোটেলটির বেশ কয়েকটি জানালা ভাঙ্গাসহ দৃশ্যমান খতি হয়েছে।

ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহে। একটি টুইট করে তিনি বলেন, এ জাতীয় হামলা একেবারেই কাপুরোষোচিত। দেশের প্রতিটি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে ও দৃঢ় মনের পরিচয় দিতে অনুরোধ জানান তিনি।

শ্রীলঙ্কার ক্যাথলিক চার্চ প্রধান কার্ডিনাল ম্যালকম রনজিতও ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন৷ তিনি বলেছেন যে, এই সন্ত্রাসী হামলার পেছনে কোন স্থানীয় বা আন্তর্জাতিক দল জড়িত তা এখনো পরিষ্কার নয়৷

blob:https://www.dailystar.co.uk/170ba768-bac7-47c2-aa56-91ddc08e4ba3

বিশ্বনেতারাও ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন৷ আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি বলেছেন যে, ‘উপাসনালয়ে হামলা আতঙ্কের বিষয়’ এবং তিনি শ্রীলঙ্কার এমন ‘অন্ধকার সময়ে’ পাশে থাকবেন বলে জানিয়েছেন৷

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের মুখপাত্র টুইটারে লিখেছেন, ‘‘ইস্টারের প্রার্থনার সময় শ্রীলঙ্কায় খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ওপর এই হামলার ঘটনায় আমরা আতঙ্কিত৷ আমরা তাদের প্রতি সহমর্মিতা জানাই এবং আহতদের ও আক্রান্তের পরিবারের সদস্যদের জন্য প্রার্থনা করি৷ সন্ত্রাসবাদ, ধর্মীয় বিদ্বেষ ও অসহিষ্ণুতাকে জিততে দেয়া যাবে না৷”

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসোগলু টুইটারে লিখেছেন যে, এই হামলা ‘কাপুরুষোচিত, বর্বর ও ঠান্ডা মাথায় করা’, ঠিক যেমনটি নিউজিল্যান্ডে করা হয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘সন্ত্রাসবাদের কোনো ধর্ম নেই, জাতি নেই, কোনো ভৌগলিক পরিচয় নেই৷”

ইউরোপীয় কমিশন প্রধান জঁ ক্লোদ ইয়ুংকার ঘটনায় ‘আতঙ্ক ও দুঃখ’ প্রকাশ করেছেন৷ তিনি আক্রান্তদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন৷

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এক টুইট বার্তায় ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘আমাদের এই অঞ্চলে এমন বর্বরতার কোনো জায়গা নেই৷” শ্রীলঙ্কার এমন দুঃসময়ে ভারত পাশে আছে বলে জানান তিনি৷

শ্রীলঙ্কার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও শোক জানিয়েছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী৷ বঙ্গভবনের এক শোকবার্তায় ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। আহত ব্যক্তিদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন তিনি৷ শ্রীলঙ্কা সরকার ও জনগণের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান৷

শ্রীলঙ্কা মূলত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদেরই দেশ। দেশে খ্রিস্টধর্মে বিশ্বাসী ক্যাথলিকদের সংখ্যা ছয় শতাংশ মাত্র। ইস্টারের প্রার্থনার কারণেই গির্জায় বেশ ভিড়ই ছিল, তাই এই নির্দিষ্ট সময়টাকেই জঙ্গিরা বেছে নিয়েছে বলে মত শ্রীলঙ্কা পুলিশের।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত