প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কর্মসংস্থান সৃষ্টি লক্ষ্যে কাজ করছে বিপিও, জানালেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব

ইউসুফ বাচ্চু : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেছেন, তরুণ্যের শক্তিতে কাজে লাগিয়ে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য কাজ করতে হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে আগারগাঁও কম্পিউটার কাউন্সিলে বিপিও সামিট উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, এবারের আয়োজনে আউটসোর্সিং সেবা, পরবর্তী প্রজন্মের ধারণাগুলো প্রদর্শন করা হবে। সময়ের আলোচিত সেবা বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। গত তিন বারের সফল আয়োজনের এবার আরো বড় পরিসরে বিপিও সামিট আয়োজন করা হবে। বিপিও খাতে ২০২১ সালের মধ্যে ১ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি লক্ষ্যে এ আয়োজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
তথ্যপ্রযুক্তি সচিব বলেন, তরুণদের কাছে দেশের প্রযুক্তি খাতকে তুলে ধরার জন্য এবারের আয়োজন। গত তিনবারের চেয়ে এবারের বিপিও সামিট আরও বড় পরিসরে আয়োজন করা হয়েছে। প্রযুক্তি সেক্টরে তরুণদের কাজে লাগানোর সুযোগ রয়েছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) এ. বি. এম আরশাদ হোসেন বলেন, সারা বিশ্বে বিপিও সেক্টরের বড় বাজার রয়েছে। বাংলাদেশও এই বিপিও সেক্টরে কাজ শুরু করেছে। এবং বেশ ভালো করছে। এবারের বিপিও সামিটের মাধ্যমে দক্ষ তরুণদেরকে খুঁজে বের করা হবে। সরকারের পক্ষ থেকে প্রযুক্তি উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ভবিষ্যতে এটা আরও বৃদ্ধি করা হবে।

২০১৫ সালে বিপিও সেক্টর সম্পর্কে জনগণের তেমন কোনো ধারনা ছিলো না উল্লেখ করে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অফ কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিংয়ের (বাক্য) সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ বলেন, তিন বারের বিপিও সামিট আয়োজনের ফলে এখন সবাই এ বিষয়টি সম্পর্কে অবগত। বিপিও খাতে উন্নয়নের জন্য এ সামিট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি আশা করি।

ফিফোটেকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্য)-এর সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হোসেন বলেন, সব শ্রেণির মানুষের চাকরির সুযোগ রয়েছে বিপিও সেক্টরে। আমরা এ সামিটে তা তুলে ধরার চেষ্টা করবো। বিপিও সেক্টরে দেশের যেকোনো জায়গায় বসে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। বিপিও সামিটে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দক্ষ তরুণদের এনে চাকরির দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। প্রযুক্তি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের রপ্তানি অসীম সম্ভবনা রয়েছে। এ যাত্রা এ সরকারের আমলে শুরু হয়েছে। আগে আমরা প্রযুক্তি পণ্য আমদানীকারক দেশ ছিলাম, বর্তমানে আমরা উৎপাদন ও রপ্তানী করছি।

এবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে আগামী ২১ ও ২২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে দুই দিনের বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০১৯ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) মালিহা নার্গিস, বাক্যের সিনিয়র সহসভাপতি আবুল খায়ের, সহসভাপতি তানভীর ইব্রাহিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তানজিরুল বাশার, অর্থ সম্পাদক আমিনুল হক প্রমুখ।

সর্বাধিক পঠিত